করোনাভাইরাসে নাগরিকদের মৃত্যু নিয়ে নতুন করে পর্যালোচনা করছে পেরু সরকার। নতুন পর্যালোচনায় দেখা যায়, আগের হিসাবের তুলনায় দেশটিতে করোনায় দ্বিগুণ মানুষ মারা গেছেন। 

সরকারি হিসাব অনুযায়ী করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৬৯ হাজার ৩৪২। আর নতুন পর্যালোচনায় তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৮০ হাজার। খবর বিবিসির

যুক্তরাষ্ট্রের জন্স হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে, বর্তমানে পেরুতে করোনায় মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। 

পেরুর প্রধানমন্ত্রী ভায়োলেটা বারমুডেজ সাংবাদিকদের বলেন, পেরুর এবং আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে এই পর্যালোচনা করা হয়েছে। এটি তথাকথিত অতিরিক্ত মৃত্যুর পরিসংখ্যানের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ। আর অতিরিক্ত মৃত্যুর পরিমাপটা নির্ভর করে, গত কয়েক বছরে প্রত্যাশার চেয়ে কত বেশি মানুষ মারা যাচ্ছে তার ওপর।

ভায়োলেটা বারমুডেজ আরো বলেন, ‘আমি মনে করি, এটা আমাদের দায়িত্ব জনগণকে সঠিক তথ্য জানানো’।

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত লাতিন আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম পেরু।

পেরুর মেডিকেল ফেডারেশনের সভাপতি গডোফ্রেডো তালাভেরা বলছেন, সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়া বিস্ময়ের কিছু নয়। তিনি বলেন, এখানে অক্সিজেন নিয়ে সরকারি কোন সহায়তা পাওয়া যায়নি, নেই পর্যাপ্ত আইসিইউ বেড। এমনকি পর্যাপ্ত টিকাও নেই।