ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় ২১ অভিবাসনপ্রত্যাশীর লাশ উদ্ধার করেছে তিউনিসিয়ার কোস্টগার্ড। এ ঘটনায় আরও ৫০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার তিউনিসীয় কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে। 

তিউনিসিয়ার ন্যাশনাল গার্ডের মুখপাত্র হৌসেম এদেইন জেবাবলি জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় রোববার তিউনিসিয়ার বন্দরনগরী সাফাক্সের উপকূলে একটি নৌকা ডুবে যায়। এ ঘটনায় ২১ অভিবাসনপ্রত্যাশীর লাশ এবং ৫০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তারা সবাই আফ্রিকার সাব-সাহারা অঞ্চলের বাসিন্দা। 

তিনি আরও বলেন, গত ২৬ জুনের পর থেকে সাফাক্সের উপকূলে ভূমধ্যসাগরে ইউরোপে অভিবাসনপ্রত্যাশীদের বহনকারী চারটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় ৪৯ জনের লাশ ও ৭৮ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

এর আগে গত শনিবার লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে তিউনিসিয়া উপকূলে ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে কমপক্ষে ৪৩ জনের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ৮৪ জনকে উদ্ধার করা হয়। তিউনিসিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ওই নৌকায় বাংলাদেশ, মিসর, চাদ, সুদান ও ইরিত্রিয়া থেকে আসা অভিবাসনপ্রত্যাশীরা ছিলেন।

এশিয়া ও আফ্রিকার অভিবাসনপ্রত্যাশীরা লিবিয়া ও তিউনিসিয়ার উপকূল থেকে নৌকায় ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি হয়ে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে যান। 

জাতিসংঘের অভিবাসনবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর মে মাসের শুরুতে জানিয়েছিল, চলতি বছরের শুরু থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে অন্তত ৫০০ অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। আগের বছরের একই সময়ে যে সংখ্যা ছিল ১৫০।