দেশীয় প্রযুক্তির ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণ করেছে ভারত। বুধবার ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয়। 

জানা গেছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি হালকা ও সহজেই বহনযোগ্য। এটি তৈরি করেছে ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংগঠন (ডিআরডিও)। খবর এএনআইয়ের

গত ফেব্রুয়ারিতেই দেশীয় প্রযুক্তির আরও একটি ক্ষেপণাস্ত্র সেনাবাহিনীর হাতে তুলে দিয়েছিল ডিআরডিও। ওই ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের নাম দেওয়া হয় হেলিনা। 

এদিকে, গত জুনে অগ্নি সিরিজের নয়া মিসাইল ‘অগ্নি প্রাইম’-এর সফল পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করেছে ভারত। ২৮ জুন, সকালে ওড়িশা উপকূলে অগ্নি প্রাইমের সফল উৎক্ষেপণ করে ডিআরডিও। 

ভূমি থেকে এই ক্ষেপনাস্ত্র পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম। অগ্নি প্রাইম ১ থেকে ২ হাজার কিলোমিটার পর্যন্ত নিশানায় নিখুঁতভাবে আঘাত হানতে সক্ষম। অগ্নি-৩ এর তুলনায় নয়া প্রজন্মের অগ্নি প্রাইমের ওজন প্রায় ৫০ শতাংশ কম। ওজনে হালকা হওয়ায় রেল বা সড়ক পথে বিশেষ সামরিক যান থেকে এই ক্ষেপনাস্ত্রটি ছোঁড়া যাবে।

রিং-লেজার জাইরোস্কোপের উপর ভিত্তি করে আগ্নি প্রাইমের নেভিগেশন সিস্টেমটি তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি ক্ষেপণাস্ত্রটির দুই স্তরেই সমন্বিত রকেট মোটর রয়েছে এবং গাইডেন্স সিস্টেমগুলি ইলেক্ট্রোমেকানিকাল অ্যাকিউইটরে সজ্জিত। ফলে এই ক্ষেপণাস্ত্রের ক্ষমতা আগের দুই সংস্করণের থেকে অনেকটাই বেশি।

বিষয় : ভারত ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ

মন্তব্য করুন