পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের উন্নয়ন সহযোগী ও বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র চীন বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। চীনের থেকে কয়েক মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম কিনেছিল পাকিস্তান। কিন্তু এসব ত্রুটিপূর্ণ সরঞ্জাম পাকিস্তানের কোনো কাজেই আসেনি। 

রুশিড়ু ওয়াদুগে নিউজ ১৯-এ লিখেছেন, পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা চীনের তৈরি অস্ত্র নিয়ে সমস্যার কথা জানান। তবে চীন তাদের মিত্রদের উদ্বেগের বিষয়ে সাড়া দিয়েছে অনেক পরে। 

কয়েক মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে কিনে নেওয়া চীনা নির্মিত বিল্ট পোর্টেবল এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম, আর্টিলারি রকেট সিস্টেম ও ক্ষেপণাস্ত্রে প্রযুক্তিগত এবং অপারেশনগত ত্রুটি আছে বলে জানিয়েছে পাকিস্তান।  

রুশিড়ু ওয়াদুগে লিখেছেন, চীনের এই কার্যকলাপের কারণে পাকিস্তানের সীমান্তগুলোতে প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে।

চীনা নির্মাতা উহান ইনফ্রারেড কো লিমিটেড দ্রুত সিস্টেমগুলি প্রতিস্থাপন বা মেরামত করার পরিবর্তে এই সমস্যা মিটিয়ে ফেলার জন্য আরেকটি সংস্থাকে নিয়োগ করেছে। 

চীনের কোম্পানির প্রতিনিধি অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরে সিদ্ধান্তে এসেছে যে, সিস্টেমগুলো মেরামতের অবস্থায় নেই, তাই এগুলো প্রতিস্থাপন করতে হবে।

ওয়াদুগে লিখেছেন, চীনের ত্রুটিপূর্ণ এসব সরঞ্জাম পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মারাত্মক মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।