উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করেছে ইকুয়েডর। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে এক চিঠিতে তার নাগরিকত্ব বাতিলের কথা জানিয়েছে দেশটির বিচার বিভাগ। 

ইকুয়েডরের পিচিনচা আদালতে সোমবার অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আদালত বলছেন, তথ্য গোপন, মিথ্যা নথিপত্র জমাদান কিংবা জালিয়াতির অভিযোগে তার নাগরিকত্ব বাতিল করা হয়েছে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের 

তবে, অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী কার্লোস পোভেদার অভিযোগ, যথাযথ প্রক্রিয়া না মেনেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে, অ্যাসাঞ্জকে বিচারকালে হাজির হওয়ার অনুমতিও দেওয়া হয়নি।

বর্তমানে যুক্তরাজ্যে কারাবন্দী রয়েছেন অ্যাসাঞ্জ। তাকে যে তারিখে আদালতে ডাকা হয়েছিল তখন তিনি মুক্ত ছিলেন না, পাশাপাশি বন্দি অবস্থায় অসুস্থ ছিলেন বলেও উল্লেখ করেন পোভেদা। এই সিদ্ধান্তের বিস্তারিত এবং স্পষ্ট ব্যখ্যা জানতে আপিল করা হবে বলেও তিনি জানান।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের জুন থেকে  ৮ বছরের বেশি সময় ধরে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। পরে ২০১৯ সালের এপ্রিলে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রত্যাহার করে তাকে ব্রিটিশ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। জামিনের শর্ত ভঙের জন্য তাকে দোষী সাব্যস্ত করেছেন ব্রিটিশ আদালত। তখন থেকে বেলমার্শ ব্রিটেনের কারাগারে সাজা ভোগ করছেন অ্যাসাঞ্জ।