এনএলডি সরকারকে উৎখাতের ছয় মাসের মাথায় মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে বসছেন জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইং। রোববার এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মিন অং হ্লাইংকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের (কেয়ারটেকার সরকার) প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করা হয়েছে। খবর এএফপির। 

এদিকে রোববার এক টেলিভিশন ভাষণে আগামী দুই বছরের মধ্যে জরুরি অবস্থা প্রত্যাহার এবং নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইং। ২০২৩ সালের আগস্টের মধ্যে দেশটিতে নির্বাচন আয়োজনের কথা বলেছেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে দেশটিতে সেনাশাসনের সময় আরও দুই বছর বাড়িয়ে দেওয়া হলো। 

গত ১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতায় বসে সামরিক জান্তা। তারা সু চির বিরুদ্ধে নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনে। তবে ওই অভিযোগ নাকচ করে দেয় মিয়ানমারের নির্বাচন কমিশন। এরপর থেকে দেশটিতে শুরু হয় সামরিক সরকারবিরোধী বিক্ষোভ।

রোববার মিয়ানমারজুড়ে ছোট ছোট দলের বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। সেনা অভ্যুত্থানের ছয় মাস পূর্তির প্রাক্কালে জান্তার বিরুদ্ধে রাজপথে নামেন দেশটির বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

মার্কিন দূতাবাসের পক্ষ থেকে এক ফেসবুক পোস্টে বলা হয়, ‘সেনা অভ্যুত্থানের ছয় মাস পূর্তির মধ্যে মিয়ানমারের জনগণ অভূতপূর্ব সাহস ও ব্যাপক সহিংসতার মুখে দৃঢ় প্রত্যয় দেখিয়েছে। মিয়ানমারের জনগণকে তাদের নিজস্ব পছন্দের গণতান্ত্রিক, অন্তর্ভুক্তিমূলক ভবিষ্যতের আকাঙ্ক্ষায় সমর্থন করতে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’