সাম্প্রতিক কয়েক ঘণ্টায় কিছু ফ্লাইট সফলভাবে কাবুল বিমানবন্দর ছেড়ে গেছে, কিন্তু ইউরোপিয়ান দেশগুলো তাদের নাগরিকদের বিমানবন্দর এলাকায় নিয়ে যেতে হিমশিম খাচ্ছে।

ফরাসি, জার্মান, ডাচ এবং চেক বিমান টারম্যাক থেকে উড়েছে, কিন্তু দেশ ছাড়ার চেষ্টায় মানুষ বিমানবন্দরের গেটে ঢোকার চেষ্টা করলে গুলি ছোড়া হয়েছে বলে খবর আসছে। খবর বিবিসির।

গত রাতে একটি ডাচ সামরিক বিমান ৪০ জন যাত্রী নিয়ে আকাশে ওড়ে, কিন্তু ওই ৪০ জনের কেউই ডাচ বা আফগান ছিল না। বিমানটিকে রানওয়েতে মাত্র আধা ঘণ্টার জন্য থামতে দেওয়া হয়।

একটি ডাচ আফগান পরিবার জানিয়েছে, বিমানবন্দরের গেটে মার্কিন বাহিনী তাদের ঢুকতে বাধা দেয়। আজও অনেকে বিমানবন্দরে ঢোকার চেষ্টা করেছেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা ডাচ সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, বিমানবন্দরের উত্তর গেটে হুঁশিয়ারিমূলক গুলি এবং কাঁদানে গ্যাস ছোড়া হয়েছে।

বুধবার সকালে ফ্রান্স জানিয়েছে, ২৫ জন ফরাসি নাগরিক এবং ১৮৪ জন আফগানকে তারা আবু ধাবিতে নিয়ে গেছে। তাদের অনেকে কাবুলের ফরাসি দূতাবাসে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিল বলে ফরাসি সরকার জানিয়েছে। চেক একটি বিমানও ৮৭ জনকে নিয়ে বুধবার প্রাগে পৌঁছেছে।

জার্মান সরকার ১০ হাজার মানুষকে সরানোর কাজ শুরু করেছে। এর মধ্যে ১৩৯ জনকে নিয়ে তাদের প্রথম বিমানটি জার্মানিতে পৌঁছেছে। তাদের উজবেকিস্তান থেকে বিমানে তোলা হয়েছে।