অটো চালিয়েই জীবন চালাতেন তিনি। কিন্তু সেই অটোচালকই লটারি জিতে রীতিমতো কোটিপতি বনে গেছেন। তাও এক কোটি নয়, লটারিতে রীতিমতো ১২ কোটি রুপি জিতেছেন তিনি। বাংলাদেশি টাকায় যার মূল্য দাঁড়ায় ১৩ কোটি টাকারও বেশি।
 
ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোটিপতি ওই অটোচালকের নাম জয়পালান পি আর। তিনি ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কেরালার মারাডুর বাসিন্দা। দশ দিন আগে তিনি লটারির টিকিট কিনেছিলেন। সোমবার তার ফল প্রকাশিত হয়।  ফল দেখতে গিয়ে অটোচালক জানতে পারেন, তিনিই প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন। আর সেই পুরস্কারের আর্থিক মূল্য ১২ কোটি রুপি।

রাতারাতি বড়লোক হওয়া জয়পালানের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, কী করে নম্বর বেছে নিয়েছিলেন বা নম্বর বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে কারও পরামর্শ নিয়েছিলেন কি না।  জবাবে কোটিপতি অটোচালক বলেন, লটারির নম্বর ছিল টিই৬৪৫৪৬৫। সংখ্যাটি দেখে আমার ভাল লেগেছিল। তাই ওই টিকিটটি কেটেছিলাম। এ ব্যাপারে কারও পরামর্শ নিইনি।

প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ত্রিপুনীথুরা থেকে গত ১০ সেপ্টেম্বর ওনাম বাম্পার লটারির টিকিটটি কেটেছিলেন জয়পালান। রোববার তিরুঅনন্তপুরমের গোর্কি ভবনে লটারি খেলা হয়। কেরালার অর্থমন্ত্রী কে এন বালগোপাল অনুষ্ঠানটির উদ্বোধন করেছিলেন। কেরালা জুড়ে বিক্রি হওয়া ৫৪ লাখ টিকেটের মধ্যে বেছে নেওয়া হয় প্রথম পুরস্কার বিজেতাকে। প্রতিটি টিকিটের মূল্য ছিল ৩০০ রুপি।

লটারিতে এত টাকা জেতাকে জয়পালান ঈশ্বরের আশীর্বাদ হিসেবেই দেখছেন। তিনি জানান, এই টাকা থেকে তিনি অটো কেনার এবং বাড়ির ঋণ পরিশোধ করবেন। বাকী টাকা দিয়ে কি করবেন তা পরিবারের সঙ্গে বসে ঠিক করবেন।