হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষায় র‌্যাপিড টেষ্টে শুক্রবার পর্যন্ত কোনো করোনা রোগী পাওয়া যায়নি।

বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিমানবন্দরে সংযুক্ত আরব আমিরাতগামী প্রবাসী যাত্রীদের করোনা পরীক্ষায় র‌্যাপিড টেষ্ট করা হয়। ফ্লাইট ছাড়ার প্রায় ৬ ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে পৌঁছে যান যাত্রীরা। 

র‌্যাপিড টেষ্ট করতে বিমানবন্দরে স্থাপিত বেসরকারি ল্যাবে এক হাজার ৬০০ টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধন করে নমুনা জমা দেন যাত্রীরা। ৩ ঘণ্টা পর করোনা পরীক্ষার সার্টিফিকেট হাতে পেয়ে পাসপোর্ট তল্লাশিসহ বিভিন্ন আনুষ্ঠানিক শেষে যাত্রীরা গন্তব্যে পৌছেন।

বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা.শাহরিয়ার সাজ্জাদ সমকালকে জানান, গত বুধবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের অনুমতির পর বিমানবন্দরে র‌্যাপিড টেষ্ট শুরু হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত এই র‌্যাপিড টেষ্টে কোনো যাত্রীর পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।

বিমানবন্দর স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, শুক্রবার বাংলাদেশ বিমানসহ বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের ৬টি ফ্লাইটের প্রায় শতাধিক প্রবাসী যাত্রী করোনা পরীক্ষায় র‌্যাপিড টেষ্ট শেষে তারা গন্তব্যে পৌঁছেছেন। 

প্রায় সাড়ে চার মাস পর সংযুক্ত আরব আমিরাতের বন্ধ দুয়ার খুলেছে। প্রায় তিন সপ্তাহের টানাপড়েন শেষে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনার পরীক্ষায় র‌্যাপিড টেষ্ট শুরু হয়েছে। আমিরাতের শর্ত মেনে বিমানবন্দরের করোনা পরীক্ষা করে দেশটিতে যেতে শুরু করেছেন বাংলাদেশি প্রবাসীরা।