গরিব আফগানদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে জাতিসংঘসহ পশ্চিমা দাতা দেশগুলো। তবে সাহায্যের টাকা তারা তালেবানের হাতে না দিয়ে সরাসরি গরিব মানুষদের হাতে তুলে দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানা গেছে এমন তথ্য।

রয়টার্স বলেছে, তারা এমন কিছু অভ্যন্তরীণ নীতির গোপন নথিপত্র পেয়েছে, যাতে জানা গেছে, আফগানিস্তানের প্রকৃত গরিবদের কাছে বিমানে করে নগদ টাকা পাঠানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, দেশটির অর্থনীতিতে দ্রুত ধস নামায় নগদ অর্থসঙ্কট দেখা দিয়েছে।

রয়টার্সের হাতে আসা কাগজপত্র অনুসারে, আফগানিস্তানে বিমানে করে নগদ টাকা পাঠানো হবে।

খরা এবং রাজনৈতিক টালমাটাল অবস্থায় দেশটিতে মানবিক সঙ্কট এড়ানোর লক্ষ্যে জরুরি তহবিল থেকে গরিব আফগানদের প্রায় ২০০ মার্কিন ডলার করে দেওয়া হবে। এই টাকা কাবুলে সরাসরি ব্যাংকের মাধ্যমে বিতরণ করা হবে। তালেবানও এতে সায় দিয়েছে এবং কোনো বাধা দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের হিসেবে জানা গেছে, আফগানিস্তানে জনসাধারণের ব্যযের ৭৫ ভাগ আসত বিদেশি দাতাদের কাছ থেকে। কিন্তু তালেবানের ক্ষমতা দখল ও বিদেশি সেনা চলে যাওয়ার পর দাতারা সে সহায়তা বন্ধ রেখেছে।

আফগানিস্তান নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলো এখন উভয় সঙ্কটে পড়েছে। তারা তালেবানের উত্থানে বিরক্ত, কিন্তু আফগান জনগণকে সহায়তা করতে উন্মুখ। এ অবস্থায় তারা সাহায্য পাঠাতে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করছে।

ওদিকে ১ কোটি ৪০ লাখ আফগান না খেয়ে মরার ঝুঁকিতে রয়েছে বলে সতর্ক করে দিয়েছে জাতিসংঘ।