চীনে কর্মকর্তাদের অনুরোধের পর অ্যাপল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় অ্যাপ 'কোরআন মজিদ' সরিয়ে নিয়েছে। বিশ্বে অত্যন্ত জনপ্রিয় এই অ্যাপটি অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যায় এবং এর রিভিউর সংখ্যা দেড় লাখের মতো। বিশ্বের লাখ লাখ মুসলিম অ্যাপটি ব্যবহার করে।

অবৈধ ধর্মীয় টেক্সট থাকার কারণে অ্যাপটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে চীন সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোনো মন্তব্য করেনি। খবর বিবিসির।

বিশ্বে অ্যাপ স্টোরের অ্যাপগুলোর ওপর নজর রাখা 'অ্যাপল সেন্সরশিপ' ওয়েবসাইটে খবরটি প্রথম প্রকাশিত হয়।

অ্যাপটির নির্মাতা পিডিএমএস কোম্পানি এক বিবৃতিতে বলেছে, 'অ্যাপলের মতে, আমাদের অ্যাপ 'কোরআন মজিদ' চীনা অ্যাপ স্টোর থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। কারণ তাতে কিছু বিষয় ছিল যা অবৈধ। বিষয়টি সমাধানের জন্য আমরা চীনের সাইবারস্পেস প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি।'

কোম্পানিটি বলছে, চীনে তাদের প্রায় ১০ লাখের মতো ব্যবহারকারী রয়েছে।

কোরআন অ্যাপটি সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে বিবিসির কাছে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে অ্যাপল। তবে তারা মানবাধিকার বিষয়ে তাদের নীতির কথা উল্লেখ করেছে।

অ্যাপলের ওই নীতিতে বলা হয়েছে, 'আমাদের স্থানীয় আইন মেনে চলতে হয়, জটিল কোনো বিষয়ের ক্ষেত্রেও, যে ব্যাপারে আমরা সরকারের সঙ্গে দ্বিমতও পোষণ করে থাকতে পারি।'

তবে চীনা এই অ্যাপটি কোন আইন ভঙ্গ করেছে তা এখনও পরিষ্কার নয়। 'কোরআন মজিদ' অ্যাপের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিশ্বের সাড়ে তিন কোটিরও বেশি মুসলিমের এই অ্যাপটির ওপর আস্থা রয়েছে।

চীন অ্যাপলের জন্য অন্যতম বৃহৎ একটি বাজার। এমনকি এই কোম্পানির বিভিন্ন সামগ্রীর সরবরাহ চীনা কল-কারখানার ওপর নির্ভরশীল। এ সপ্তাহে চীনে আরও একটি জনপ্রিয় ধর্মীয় অ্যাপ অলিভ ট্রির 'বাইবেল অ্যাপ' সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে বিবিসি জানতে পেরেছে কোম্পানিটি নিজেই অ্যাপটি সরিয়ে নিয়েছে। এ বিষয়ে অলিভ ট্রির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারাও কোনো মন্তব্য করেনি।

অ্যাপল সেন্সরশিপের প্রকল্প পরিচালক বেঞ্জামিন ইসমাইল বলেছেন, 'সম্প্রতি অ্যাপল বেইজিংয়ের সেন্সরশিপ ব্যুরোতে পরিণত হয়েছে। তাদের সঠিক কাজটাই করতে হবে, তারপর চীন সরকারের প্রতিক্রিয়া মোকাবেলা করতে হবে।'

চীনের ইচ্ছে অনুযায়ী কাজ করা ক্রমশ কঠিন হয়ে পড়ছে উল্লেখ করে বৃহস্পতিবার মাইক্রোসফট বলেছে, তারা চীনে তাদের লিঙ্কডিন নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দিচ্ছে।