ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলের সমুদ্রে শখের বশে সাঁতার কাটছিলেন এক ডুবুরি। হঠাৎ পেয়ে যান একটি তলোয়ার। ৯০০ বছরের পুরোনো তলোয়ারটির ওপর বাসা বেঁধেছে সামুদ্রিক নানা জীব। প্রায় সাড়ে তিন ফুট দৈর্ঘ্যের তলোয়ারটি খুঁজে পান স্লোমি ক্যাটজিন।

ধারণা করা হচ্ছে, দেশটির হাইফার কারমেল উপকূলে অগভীর সমুদ্রের তলদেশের বালু সরে যাওয়ায় প্রাচীন এই অস্ত্রটি দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এগুলো ব্যবহার করতেন ক্রুসেডার নাইট যোদ্ধারা। ১০৯৫ সালে শুরু হওয়া ক্রুসেড বা ধর্মযুদ্ধ চলেছে এক শতাব্দী ধরে। সে সময় ইউরোপীয় খ্রিষ্টানরা মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ভ্রমণ করেছে জেরুজালেমসহ মুসলমানদের পবিত্র ভূমিগুলো দখল করার চেষ্টায়। তলোয়ারটি পরিস্কার করে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর প্রদর্শনীর জন্য রাখা হবে বলে ইসরায়েলের প্রত্নতত্ত্ব কর্তৃপক্ষ (আইএএ) জানিয়েছে। খবর বিবিসির।

আইএএর সামুদ্রিক প্রত্নতত্ত্ব শাখার প্রধান কোবি শারভিত বলেন, ওই উপকূলে কয়েক শতাব্দী ধরে ঝড়ের সময় বিভিন্ন জাহাজকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে। এ কারণে যুগ যুগ ধরে বাণিজ্যিক জাহাজগুলো সেখানে ভিড়েছে; পেছনে ফেলে গেছে সমৃদ্ধ সব প্রত্নতত্ত্ব। আর এ উপকূলের কাছাকাছি ছিল ক্রুসেডারদের আতলিট দুর্গ। লোহার তৈরি তলোয়ারটি পাথরখচিত। এ কারণে এটি অনেক ভারি এবং আকৃতিতেও অনেক বড়। এ থেকে অনুমান করা যায়, যারা এটি ব্যবহার করেছে তারা খুবই শক্তিশালী ছিল।