সুদানে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর এই তৎপরতাকে ভাল চোখে দেখছে না আফ্রিকার রাষ্ট্রগুলোর সংস্থা আফ্রিকান ইউনিয়ন (এইউ)। তারা সুদানে নিজেদের সব কার্যক্রম স্থগিত রাখার ঘোষণা দিয়েছে। বুধবার এক টুইটার বার্তায় এই সিদ্ধান্তে কথা জানিয়েছে এইউ-র পলিটিকাল অ্যাফেয়ার্স পিস অ্যান্ড সিক্যুরিটি।

বলা হয়েছে, স্থগিতাদেশ ততদিন কার্যকর থাকবে, যতদিন না দেশটিতে অন্তর্বর্তী কর্তৃপক্ষের অধীনে স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনা শুরু হবে। খবর এনডিটিভির।

স্থগিতাদেশকে একটি ‘প্রত্যাশিত পদক্ষেপ’ হিসেবে অভিহিত করে সংস্থাটি এক বিবৃতিতে বলেছে, দেশটিকে নির্বাচনের দিকে নিয়ে যাওয়া অন্তর্বর্তীকালীন কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম শুরু না হওয়া পর্যন্ত স্থগিতাদেশ বহাল থাকবে।

বুধবার বিশ্বব্যাংক সামরিক শাসনাধীন সুদানে আর্থিক সহায়তা প্রদান স্থগিত ঘোষণা করার পর আফ্রিকান ইউনিয়নের পক্ষ থেকেও এই ঘোষণা এল। এদিকে রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানির কর্মীরা এবং ডাক্তাররা বলেছেন, তারা সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখলের বিরুদ্ধে তাদের ইউনিয়নগুলোর ডাকা নাগরিক আইন অমান্যের পক্ষে তাদের সমর্থন জানাবে।

সুদানের সেনারা গত সোমবার প্রধানমন্ত্রী আবদাল্লা হামডোককে আটক করে। ২০১৯ সালে সুদানের সামরিক ও অসামরিক পক্ষের মধ্যে সমঝোতার আলোকে একটা স্থিতিশীল অবস্থার মধ্যে এসেছিল। ২০১৯ সালে দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় থাকা সাবেক প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে অপসারণ করার পর এই সমঝোতা হয়েছিল।