জার্মানির বার্লিনে রুশ দূতাবাসের বাইরে রাশিয়ার এক কূটনীতিকের মরদেহ উদ্ধার করার খবর প্রকাশ্যে এসেছে। গত ১৯ অক্টোবর ওই কূটনীতিকের মরদেহ উদ্ধার করা হলেও স্থানীয় সময় শুক্রবার ঘটনাটি প্রকাশ পেয়েছে।

দেশটির দ্য স্পিগেল ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, ওই ব্যক্তি দূতাবাস ভবনটির উপরের তলা থেকে পড়ে মারা গেছেন। প্রাথমিকভাবে এমন ধারণা করলেও, কিভাবে তার মৃত্যু হয়েছে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

রাশিয়ার বার্লিন দূতাবাস ঘটনাটিকে ‘মর্মান্তিক দুর্ঘটনা’ বলে উল্লেখ করলেও আনুষ্ঠানিকভাবে ওই কূটনীতিকের নাম প্রকাশ করেনি।

এদিকে, জার্মানির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওই ব্যক্তির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করলেও বিস্তারিত কিছু জানায়নি। শুক্রবার প্রকাশিত ওই ঘটনা সম্পর্কে দেশটির পুলিশও মন্তব্য করতে রাজি নয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিহত ব্যক্তির বয়স ৩৫ বছর এবং তিনি রুশ দূতাবাসে সেকেন্ড সেক্রেটারি হিসেবে তালিকাভুক্ত ছিলেন।

এদিকে অনুসন্ধানী ওয়েবসাইট বেলিংক্যাট বলছে, ওই ব্যক্তি রাশিয়ার এফএসবি গোয়েন্দা সংস্থার সেকেন্ড সার্ভিসের উপ-পরিচালকের ছেলে।

২০১৯ সালের আগস্টে বার্লিনের ক্লিনার টিয়ারগার্টেন পার্কে পেছন থেকে ছোড়া গুলিতে নিহত হন ৪০ বছর বয়সী জর্জিয়ান নাগরিক ও সাবেক চেচেন বিদ্রোহী কমান্ডার জেলিমখান খানগোশভিলি। এই ঘটনার সঙ্গে ওই রুশ কূটনীতিকের মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক থাকতে পারে বলে ধারণা করছে অনুসন্ধানী ওয়েবসাইটটি।

জার্মানি এই ঘটনার জন্য রাশিয়াকে অভিযুক্ত করছে। জার্মানির গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, রুশ দূতাবাস ওই কূটনীতিকের মরদেহ ময়নাতদন্ত করতেও রাজি হয়নি।