করোনাভাইরাসের নতুন ধরন 'ওমিক্রন' টিকার কার্যকারিতা কমিয়ে দেয় বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

রোববার সংস্থাটির এক কারিগরি ব্রিফিংয়ে একথা জানানো হয় বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

ডব্লিউএইচওর কারিগরি ব্রিফিংয়ে বলা হয়, প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত তথ্য-প্রমাণ ইঙ্গিত দিচ্ছে, করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ধরন হিসেবে পরিচিত 'ডেলটা'র চেয়েও দ্রুত ছড়ায় নতুন ধরন 'ওমিক্রন'। পাশাপাশি এটি টিকার কার্যকারিতাও কমিয়ে দেয়।

তবে এখন পর্যন্ত 'ওমিক্রনের' সংক্রমণে মাঝারি বা উপসর্গবিহীন অসুস্থতার প্রমাণ মিলেছে জানিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, নতুন এই ধরনটির সংক্রমণ প্রকৃতপক্ষে কতোটা তীব্র হতে পারে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য এখনও যথেষ্ট তথ্য-উপাত্ত নেই।

গত ২৪ নভেম্বর করোনাভাইরাসের এই নতুন ধরন দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। প্রাথমিকভাবে নতুন এই ধরনটিকে 'বি.১.১.৫২৯' নামে ডাকা হচ্ছিল। পরে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাভাইরাসের নতুন এ ধরনের নামকরণ করে 'ওমিক্রন' এবং একে 'উদ্বেগজনক' ধরন বলে আখ্যায়িত করে।

করোনাভাইরাসের নতুন এই ধরন ভারতে শনাক্ত হয় গত ২ ডিসেম্বর। গত শনিবার জিম্বাবুয়ে থেকে ফেরা বাংলাদেশের দুই নারী ক্রিকেটারের দেহে ওমিক্রণের সংক্রমণ শনাক্ত হয়।