ব্রিটিশ রাজবধূ মেগান মার্কেলের ব্যক্তিগত তথ্য প্রকাশ করে মানহানি করার অভিযোগে যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম দ্য মেইল অন সানডেকে মাত্র এক পাউন্ড জরিমানা হয়েছে।

ডাচেস অব সাসেক্স মেগানের বাবাকে লেখা একটি চিঠি সংবাদপত্রে প্রকাশ করা নিয়ে গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগে এ মামলা চলছিল। খবর দ্য গার্ডিয়ানের

এই মামলায় দ্য মেইল সানডে ও মেইল অনলাইন আদালতের কাছে নিজেদের দোষ স্বীকার করে নিয়েছে। একইসঙ্গে বিষয়টি নিয়ে তারা আর উচ্চ আদালতে যাবে না—এই মর্মে আদালতকে নিশ্চয়তা দেওয়ায় এই ন্যূনতম রায় দেন আদালত। তবে চিঠির বড় অংশ প্রকাশ করে আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে কপিরাইট আইনে দায়ের করা মামলায় দ্য মেইলকে অর্থদণ্ড দেওয়া লাগতে পারে।

আইনজীবী মার্ক স্টিফেনস বলেছেন, এই রায় খুবই দুর্বল। সাধারণত এ ধরনের মামলায় পৌঁনে এক লাখ থেকে সোয়া এক লাখ পাউন্ড পর্যন্ত অর্থদণ্ড হওয়া উচিত ছিল।

রায়ের পর মেগান বলেন, অর্থের চেয়ে এখানে নৈতিকতার বিষয়টি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

এদিকে কপিরাইট আইন ভঙ্গ করায় অর্থ দিতে রাজি হয়েছেন দ্য মেইল অন সানডে প্রকাশক। তবে অর্থের পরিমাণের বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

প্রায় তিন বছর ধরে দ্য মেইলের বিরুদ্ধে মামলা চালাতে গিয়ে ১০ লাখ পাউন্ডের বেশি ব্যয় হয়েছে মেগানের, যে অর্থও সংবাদপত্রটিকে বহন করা লাগতে পারে বলে জানা গেছে।

মার্কিন টিভি তারকা মেগান মার্কেল ২০১৮ সালে উইন্ডসর দূর্গে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের নাতি প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এরপর ২০২০ সালে মেগান ও হ্যারি ঘোষণা দেন, তারা রাজকীয় দায়িত্ব ছেড়ে উত্তর আমেরিকায় থাকবেন। তারা ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা বারবারায় দুই সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন।