শিশুরা হাতের কাছে যা পায়, তা-ই মুখে দেয়। আকারে ছোট হলে খেয়েও ফেলে। এসবের মধ্যে থাকে প্লাস্টিকও। বিষয়টি তাদের কাছে আনন্দের হলেও নতুন করে উদ্বেগ বাড়িয়েছে এক গবেষণায় উঠে আসা তথ্য। এতে জানা গেছে, শিশুর মলের সঙ্গে একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের চেয়ে ১০ গুণ প্লাস্টিক-কণা নিঃসরিত হচ্ছে। আকারে পাঁচ মিলিমিটারের কম কণাগুলো নতুন করে পরিবেশে যুক্ত হচ্ছে। প্লাস্টিক-কণায় থাকে ক্ষতিকর নানা রাসায়নিক পদার্থ, যা মারাত্মক ঝুঁকির কারণ হতে পারে। এই গবেষণা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। তারা নিউইয়র্ক নগরীর প্রায় চার হাজার শিশুর মলের নমুনা নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছেন। এতে গড়ে এক বছর বয়সী ৬ শতাংশ শিশুর মলে প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির চেয়ে অনেক বেশি মাইক্রোপ্লাস্টিক পাওয়া গেছে। শিশুদের শরীরে বিভিন্ন আকারের প্লাস্টিক প্রবেশ করছে প্লাস্টিকের বোতল ও পাত্রের মাধ্যমে খাওয়া, খেলনা মুখে দেওয়া এবং হাতের কাছে কিছু পেলে গিলে ফেলায়। শিশুদের খেলনাসহ বিভিন্ন প্লাস্টিকে ১০০ ধরনেরও বেশি বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ থাকে, যা শরীরে নানা রোগের কারণ হতে পারে। সূত্র :দ্য গার্ডিয়ান।

বিষয় : শিশুর ঝুঁকি

মন্তব্য করুন