লকডাউন চলাকালীন একটি ড্রিংস পার্টি আয়োজনের বিষয়টি স্বীকার করার পর প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের দাবির মুখে পড়েছেন বরিস জনসন। নিজের দল ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা তার পদত্যাগ চেয়েছেন। তবে তিনি উপপ্রধানমন্ত্রী ডোমিনিক রাবসহ মন্ত্রিসভা সদস্যদের সমর্থন পাচ্ছেন। 

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ২০২০ সালে লকডাউন চলাকালীন ডাউনিং স্ট্রিট বাগানের ওই অনুষ্ঠান যেভাবে  সামলেছিলেন সেই জন্য ক্ষমা চেয়েছেন এবং বলেছেন, ওই ঘটনার বিষয়ে জনগণের ‘ক্ষোভের’ বিষয়টি তিনি বুঝতে পেরেছেন। খবর বিবিসি অনলাইনের। 

বরিস জনসনের পদত্যাগ চাওয়া নেতাদের মধ্যে রয়েছেন স্কটল্যান্ডের কনজারভেটিভ পার্টি নেতা ডগলাস রস এবং সংসদ সদস্য উইলিয়াম রেগ, ক্যারোলিন নোকস এবং রজার গ্যাল। আইনপ্রণেতা ডগলাস রস বলেন, বুধবার ক্ষমা চাওয়ার পর বরিস জনসনের সঙ্গে আমার ‘শক্ত কথাবার্তা’ হয়েছে। তিনি আরও বলেন, তিনি ১৯২২ কমিটির কাছে বরিসের নেতৃত্ব নিয়ে আস্থা ভোট আয়োজনের কথা বলবেন। 

রোস বলেন, বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী। এটা তার সরকার, যারা আইন বাস্তবায়নে কাজ করছে। কিন্তু তিনি যে ধরনের কাজ করেছেন তার জন্য তাকে জবাবদিহির আওতায় আনতে হবে।

উল্লেখ্য, ১৯২২ কমিটি কনজারভেটিভ পার্টির নেতৃত্ব নির্বাচন করে থাকে। যদি দলটির ৫৪ জন সংসদ সদস্য ওই কমিটির কাছে চিঠি লেখেন, তবে বরিসের নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে।

২০২০ সালের ২০ মে ওই ড্রিংকস পার্টির আয়োজন করেছিলেন বরিস। ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাগানে আয়োজিত ওই পার্টিতে দেশটির শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাসহ শতাধিক অতিথি উপস্থিত ছিল। বরিস ও তার স্ত্রী ক্যারি সিমন্ডসও সেখানে ছিলেন। যুক্তরাজ্যে ওই সময় একসঙ্গে এত মানুষের উপস্থিতি আইনত নিষিদ্ধ ছিল।