খুশির জোয়ার ভাসছেন যুবরাজ সিং। আর হবে নাই বা কেন। ছেলে সন্তানের বাবা হলেন তিনি। টুইটারে এই খবর নিজেই জানিয়েছেন যুবরাজ। এই খবরে যুবরাজ স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত। আর সেই উচ্ছ্বাস তিনি গোপনও করেননি।

টুইটারে যুবরাজ লিখেছেন, 'আমাদের সমস্ত অনুরাগী, পরিবার এবং বন্ধুদের সঙ্গে এই খবর ভাগ করে নিতে পেরে আনন্দিত হচ্ছি যে, আমাদের ছেলে সন্তান হয়েছে। আমরা ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি, তিনি আমাদের এই খুশি দিয়েছেন। এবং আমাদের ছোট্ট সন্তানকে এই পৃথিবীতে স্বাগত জানানোর জন্য গোপনীয়তা আশা করছি। হেজেল এবং যুবরাজের পক্ষ থেকে সবাইকে অনেক অনেক ভালোবাসা।' 

নিজের সদ্যোজাত পুত্রসন্তানের কোনও ছবি পোস্ট করেননি। বরং তিনি এই সময় গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য সকলের কাছে আবেদন করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই খবর জানানোর পর থেকেই শুভেচ্ছা বার্তা পাচ্ছেন যুবরাজ পরিবার। বলিউডের একাধিক তারকার পাশাপাশি ক্রীড়াজগতের ব্যাক্তিত্বরাও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবরাজ-হ্যাজেলকে। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার হরভজন সিং শুভেচ্ছা বার্তায় লেখেন, 'ছেলের বাবা-মাকে অনেক অভিনন্দন। তোমাদের দু'জনের জন্য ভীষণ খুশি।'

যুবরাজের আরেক সতীর্থ মোহম্মদ কাইফ লেখেন, 'ভাগ্যবান বাবা-মায়ের জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা। অনেক অনেক অভিনন্দন ভাই'

শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে গৌতম গম্ভীর লেখেন, 'যুবরাজ অনেক অভিনন্দন। ছোট্ট সোনা এবং পুরো পরিবারের জন্য ভালোভাসা।'

সতীর্থদের পাশাপাশি যুবরাজকে বিশেষ বার্তা দিয়েছেন তার বাবা সাবেক ক্রিকেটার তথা অভিনেতা যোগরাজ সিং। তিনি তার নাতিকে 'চ্যাম্প' বলে তাদের পরিবারে স্বাগত জানিয়েছেন।

যুববরাজ এবং হ্যাজেল নিজেদের সম্পর্ককে স্বীকৃতি দিয়ে ২০১৫ সালের ১২ নভেম্বর বাগদান সেরে ফেলেছিলেন। আর তারা বিয়ে করেন ২০১৬ সালের ৩০ নভেম্বর।

২০০০ সালের অক্টোবরে কেনিয়ার বিপক্ষে একদিনের ম্যাচে যুবরাজের আন্তর্জাতিক অভিষেক হয়। ভারতের হয়ে ৩০৪টি ওডিআই, ৪০টি টেস্ট এবং ৫৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০১১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য ছিলেন। ২০১১ একদিনের বিশ্বকাপে 'ম্যান অফ দ্য সিরিজ' নির্বাচিত হয়েছিলেন। দীর্ঘ ১৯ বছর ভারতীয় ক্রিকেটে খেলার পর তিনি ২০১৯ সালের ১০ জুন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ফরম্যাট থেকে অবসর ঘোষণা করেন।