প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে সামরিক শক্তি এবং সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য প্রদর্শন করেছে ভারত। স্থল-জল-আকাশপথে সামরিক শক্তি দেখিয়েছে দিল্লি। প্রদর্শিত হয়েছে দেশটির বিমান বাহিনীর সর্বাধুনিক যুদ্ধবিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র। স্বাধীনতার ৭৫তম উদযাপন উপলক্ষে 'আজাদি কা অমৃত মহোৎসব'-এর অংশ হিসেবে গতকাল বুধবার অনন্য এসব প্রদর্শনী করা হয়েছে। এ উপলক্ষে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহূত ট্যাঙ্কের প্রদর্শনীও হয়েছে। এদিন ভারতীয় সীমান্তরক্ষা বাহিনী বিএসএফকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। খবর এনডিটিভি ও জিনিউজের।

রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের অভিবাদন গ্রহণের মাধ্যমে কুচকাওয়াজ শুরু হয়। রাজপুত রেজিমেন্ট, আসাম রেজিমেন্ট, জম্মুসহ ভারতীয় সেনাবাহিনীর মোট ছয়টি মার্চিং কন্টিনজেন্ট প্যারেডে উপস্থিত ছিল। ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রতিনিধিত্ব করেছে ৬১টি অশ্বারোহী বাহিনীর একটি মাউন্টেড কলাম, ১৪টি মেকানাইজড কলাম, ছয়টি মার্চিং কন্টিনজেন্ট এবং আর্মি এভিয়েশনের অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টারের একটি ফ্লাইপাস্ট।

এ ছাড়া বিভিন্ন অত্যাধুনিক বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন করা হয়।প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারতীয় বিমানবাহনীর সেনাদের ৭৫টি বিমানের একটি দুর্দান্ত ফ্লাইপাস্ট, ৪৮০ নৃত্যশিল্পীর সাংস্কৃতিক পরিবেশন প্রদর্শিত হয়েছে। স্বাধীনতার ৭৫তম উদযাপন উপলক্ষে প্রজেকশন ম্যাপিংয়ের সঙ্গে 'বিটিং দ্য রিট্রিট' অনুষ্ঠানের জন্য এক হাজার দেশীয় ড্রোন দিয়ে ড্রোন শো করা হয়।

ব্রিটিশ শাসনের অবসানের পর ৭৫তম উদযাপনে দেশটির স্বাধীনতা সংগ্রামের বহু ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে। এদিনের প্যারেডে দেশটির ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্য তুলে ধরার পাশাপাশি ঐতিহ্যবাহী নৃত্যেরও প্রদর্শনী হয়েছে। এদিন এমন কিছু সামরিক অস্ত্রের প্রদর্শনী হয়েছে, যেগুলোর মধ্যে পিটি-৭৬ মডেলের ট্যাঙ্ক, ৭৫/২৪ প্যাক হাউৎজার ও ওটি-৬২ তোপাজ সজ্জিত যুদ্ধজাহাজ ছিল। এগুলো ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানকে হারাতে সহায়তা করেছিল। দ্য পুনে হর্স রেজিমেন্টের ক্যাপ্টেন রাহুল শর্মার নেতৃত্বে এ ট্যাঙ্কটি প্রদর্শিত হয়।