ঝিনাইদহে কৃষক চান্নু মিয়া হত্যা মামলায় একজনের আমৃত্যু, পাঁচজনের যাবজ্জীবন ও ১৭ জনের ১ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলার অতিরিক্ত দায়রা জজ ১ম আদালতের বিচারক মো. শওকত হোসাইন এ রায় দেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০০৭ সালের ৮ এপ্রিল সদর উপজেলার করিমপুর গ্রামে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কৃষক চান্নু মিয়াকে কুপিয়ে হত্যা করে আসামিরা। এ ঘটনার পরদিন নিহতের  বাবা শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে ৩০ জনকে আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। তদন্ত শেষে ওই বছরের ৩০ জুন ত্রিশ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করে তদন্তকারী কর্মকর্তা। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আদালত মামলার আসামি বজলু মিয়াকে আমৃত্যু, তফসের আলী, আব্দুল জলিল, তিতু, ইকতিয়ার ও আব্দুল আলিমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং আরও ১৭ জনকে ১ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিন জনকে খালাস দেন আদালত। মামলা চলাকালে মারা যাওয়ায় ৪ জনকে মামলা থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে।

আসামি পক্ষের আইনজীবী এ্যাড. নেকবার হোসেন বলেন, আমরা ন্যায় বিচার পাইনি।  এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে আপিল করবো।

রাষ্টপক্ষের আইনজীবী অতিরিক্ত পিপি এ্যাড. আব্দুল খালেক বলেন, আমরা এ হত্যার মামলা আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা আরও কঠোর শাস্তি আশা করেছিলাম। কিন্তু আদালত যা রায় দিয়েছেন তাতেও আমরা সন্তুষ্ট।