রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের দনবাস অঞ্চলে ‌‘বিশেষ সেনা অভিযান’ পরিচালনার আগে বৃহস্পতিবার ভোর ৫ টায় ফোন দিয়েছিলেন মিত্রদেশ বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কোকে। তার সঙ্গে কথা বলার পর সকাল ছয়টা দিকে টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে পুতিন সামরিক অভিযানের সিদ্ধান্তের কথা দেশবাসীকে জানিয়ে দেন। এরপর ইউক্রেনে অভিযান শুরু করে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী।  


বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কোর কার্যালয়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপিতে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়, লুকাশেঙ্কোর কার্যালয় জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার ভোরে প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কোকে ফোন দেন পুতিন। ফোনে পূর্ব ইউক্রেনের সীমান্ত ও পূর্ব ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী–নিয়ন্ত্রিত দনবাস অঞ্চলের পরিস্থিতি সম্পর্কে লুকাশেঙ্কোকে জানান পুতিন। 


পুতিন বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে দনবাসে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া দরকার। দনবাসের স্বাধীন দুটি প্রজাতন্ত্র আমাদের কাছে সাহায্য চেয়ে অনুরোধ করেছে। জাতিসংঘ সনদের সপ্তম অধ্যায়ের ৫১ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সেখানে বিশেষ সামরিক অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

প্রসঙ্গত, ইউক্রেন সঙ্কটে চলমান নানা কার্যক্রমে রাশিয়ার ঘনিষ্ঠ মিত্র বেলারুশ।