ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, ইউরোপ রাতারাতি খুব সহজে তেল এবং গ্যাসের ব্যবহার বন্ধ করতে পারে না। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এবং ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে যৌথ এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। 

জনসন বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে জ্বালানির ওপর বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ধরনের নির্ভরতা আছে। আপনি সহজেই রাতারাতি তেল এবং গ্যাসের ব্যবহার বন্ধ করতে পারবেন না। এমনকি রাশিয়া থেকে আনাও বন্ধ করতে পারেন না। খবর বিবিসি অনলাইনের।

এ সময় তিনি বলেন, যুক্তরাজ্যে আমরা খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারি। কিন্তু আমাদের এটা নিশ্চিত করা দরকার, আমরা সবাই একদিকেই যাচ্ছি। আমরা সবাই একসঙ্গে তা করতে যাচ্ছি এটা নিশ্চিত করে যে, আমাদের সবার যেটুকু প্রয়োজন সেটুকুর সরবরাহ এবং বিকল্প আছে। 

অন্যদিকে ডাচ প্রধানমন্ত্রী স্বীকার করেন ইউরোপের অনেক অংশে এখনো রাশিয়ার জ্বালানি সরবরাহের ওপর নির্ভরশীলতা রয়েছে। তেলের ওপর নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তটি খুব ‘বিচক্ষণতার’ সঙ্গে নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। 

এর আগে লিথুনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাশিয়ার জ্বালানি বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানান। ওই সময় তিনি মন্তব্য করেন, ‘ইউক্রেনের রক্ত’ দিয়ে রাশিয়ার তেল এবং গ্যাসের মূল্য পরিশোধ করা হচ্ছে। 

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে আক্রমণ শুরু করে রাশিয়া। আক্রমণের ১২তম আক্রমণের গতি আরও বেড়েছে। ইউক্রেন বলেছে, দেশটির বিভিন্ন শহরে রাশিয়ার রকেট হামলা অব্যাহত রয়েছে। আর রাজধানী কিয়েভে সর্ব শক্তি নিয়ে হামলা করতে পারে।