মাত্র ৩০ সেকেন্ডে ৩৬ বার মাথার চারপাশে ফুটবল ঘুরিয়ে ১১তম গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস গড়েছেন মাগুরার মাহমুদুল হাসান ফয়সাল। গত ৩ মার্চে গড়া ১১তম রেকর্ড তিনি একাত্তরের শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের উৎসর্গ করেছেন। ফ্রি স্টাইলিস্ট ফুটবলার মাহমুদুল হাসান ফয়সাল ৩ বছরে ১১টি গিনেস রেকর্ড গড়েছেন।

ফুটবল ও বাস্কেট বল আর্ম রোলিং ও নেক ক্যাচসহ বিভিন্ন ইভেন্টে তিনি এই বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। ২০২৫ সালের মধ্যে তিনি ১০টি রেকর্ড গড়ার লক্ষ্যে তার অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান ফয়সাল।

জানা যায়, সর্বশেষ ৩ মার্চ ৩০ সেকেন্ডে একটি ফুটবল ৩৬ বার মাথার চারপাশে ঘুরিয়ে ১১তম গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস গড়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন। এরআগে ৩০ সেকেন্ডে কপালজুড়ে টানা ৪৬বার ফুটবল ঘুরিয়ে দশম বারের মতো গিনেস বুকে নাম লিখিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, দশম এই রেকর্ডের সঙ্গে প্রতি ৩০ সেকেন্ডে দুই বাহুর বন্ধনে ৭৭বার ফুটবল ঘুরিয়ে পেয়েছেন আরও একটি গিনেস স্বীকৃতি। যেটি তার নবম গিনেস স্বীকৃতি।

একসঙ্গে অর্জিত এই দুটি গিনেস স্বীকৃতি প্রাপ্তির কথা গিনেস কর্তৃপক্ষ গেল বছর ৩০ অক্টোবর রাতে ফয়সালকে ই-মেইলে অবহিত করেছে। ইতিপূর্বে ফ্রি স্টাইল ফুটবলে তার রয়েছে ৮টি গিনেস রেকর্ড। ২০১৮ সালের শেষে দিকে এক মিনিটে দুই বাহুর বন্ধনে ১৩৪ বার ফুটবল ঘুরিয়ে তিনি  প্রথমবারের মত গিনেস বুকে নাম লেখান।

পরবর্তীতে পর পর ২ বার প্রতি ৩০ সেকেন্ড দুই বাহুর বন্ধনে ৬২বার ফুটবল ঘুরিয়ে দুটি রেকর্ড গড়েন ফয়সাল। এরপর প্রতি ৩০ সেকেন্ড দুই বাহুর বন্ধনে যথাক্রমে ৬৮ ও ৬৬ বার ফুটবল ঘুরিয়ে আরও ২টি রেকর্ড গড়েন ফয়সাল। ২০১৯ সালে একটি বাস্কেটবল ১ মিনিটে ৩৪ বার ঘাড় দিয়ে উপরে ছুড়ে আবার তা ঘাড় দিয়ে গ্রহণ করায় তিনি বিশ্ব রেকর্ড গড়েছিলেন।

এ ছাড়া একই বছরের শুরুর দিকে ১ মিনিটে দুই হাতের মধ্যে ১৪৪ বার বাস্কেটবল ঘুরিয়ে তিনি বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। এ ছাড়া ২০২০ সালে প্রতি ১ মিনিটে একটি ফুটবল টানা ৬৬ বার ঘাড় দিয়ে উপরে ছুড়ে আবার তা ঘাড় দিয়ে গ্রহণ করায় গিনেস কর্তৃপক্ষ রেকর্ডের স্বীকৃতি দিয়েছিল।

মাগুরা সদর উপজেলার হাজিপুর গ্রামের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য সোহেল রানা ও গৃহিণী মনজুয়ারা দম্পতির একমাত্র ছেলে ১৯ বছর বয়সী ফয়সাল মাগুরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের মেকাট্রনিকস বিভাগের ৬ষ্ঠ বর্ষের ছাত্র।

ফয়সালের ইচ্ছা আগামীতে আরও নতুন-নতুন রের্কড গড়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ফ্রি স্টাইলার ফুটবল চ্যাম্পিয়ানশিপে অংশ নিয়ে বাংলাদেশের মুখ বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার জন্য তিনি কঠোর অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন। এজন্য তিনি সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দাবি জানিয়েছেন। ফয়সাল আশাবাদ ব্যক্ত করেন, ২০২৫ সালের মধ্যে তিনি ১০ গিনেস রেকর্ডে মাইলফলক স্পর্শ করবেন।