বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছেন উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। আগামী ২৩ মার্চ যুক্তরাজ্যের বেলমার্শ কারাগারে দীর্ঘদিনের সঙ্গী স্টেলা মরিসকে বিয়ে করতে যাচ্ছেন তিনি। জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিয়েতে মাত্র চারজন অতিথি অংশ নেওয়ার অনুমতি পেয়েছেন।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে গত বছরের নভেম্বরের শুরুতে কারাগারের গভর্নরের কাছে স্টেলা মরিসকে বিয়ে করার জন্য অনুমতি চান জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে অ্যাসাঞ্জকে কারাগারে বাগদত্তা স্টেলা মরিসকে বিয়ে করার অনুমতি দেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

এ প্রসঙ্গে বেলমার্শ কারাগারের একজন সার্ভিস মুখপাত্র জানান, অন্য সব কয়েদির মতোই অ্যাসাঞ্জের আবেদন গ্রহণের পর তা বিবেচনা করে বিয়ের অনুমতি দেওয়া হয়।

জানা গেছে, স্টেলা মরিসের বিয়ের পোশাকের ডিজাইন করছেন জনপ্রিয় ব্রিটিশ ডিজাইনার ভিভিয়েন ওয়েস্টউড। অ্যাসাঞ্জের বাবা ও তাদের পূর্বপুরুষরা স্কটল্যান্ডের ছিলেন। এজন্য বিয়েতে সামরিক ধাঁচে তৈরি স্কার্টের মতো স্কটল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী বিয়ের পোশাক পরবেন অ্যাসাঞ্জ। এটিও ডিজাইন করেছেন ভিভিয়েন ওয়েস্টউড।

বিয়ে নিয়ে উচ্ছ্বসিত স্টেলা মরিস বলেন, সামগ্রিক পরিস্থিতি বিরূপ। তারপরও আমরা বিয়ে নিয়ে খুব উত্তেজিত। আমাদের বিয়েতে বেআইনি হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। জুলিয়ান বিদেশি একটি শক্তির (যুক্তরাষ্ট্র) ইশারায় এখন বন্দী। এছাড়া তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ গঠন করা হয়নি। এটি একজনের জন্য অসম্মানজনক।

স্টেলা আরও বলেন, জুলিয়ান বিয়ের জন্য মুখিয়ে আছে, কারণ কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানানোর অনেকদিন পর আমাদের পরিণয় হচ্ছে।

লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে থাকাকালীন স্টেলা মরিসের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান অ্যাসাঞ্জ। পেশায় আইনজীবী স্টেলা মরিস আইনি কাজে প্রায় নিয়মিত অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে দেখা করতেন। তখন তাদের মধ্যে ভালো বোঝাপড়া তৈরি হয়। ২০১৫ সালে তারা প্রেমে পড়েন। এর দুই বছর পর তাদের বাগদান সম্পন্ন হয়। অ্যাসাঞ্জ ও স্টেলা মরিস যুগলের দুটি সন্তান আছে। তাদের দুই সন্তানই ব্রিটেনের নাগরিক।