অবশেষে কারাগারেই বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। কড়া নিরাপত্তায় বুধবার যুক্তরাজ্যের বেলমার্শ কারাগারে বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘদিনের সঙ্গী স্টেলা মরিসের সঙ্গেই গাঁটছড়া বাঁধলেন অ্যাসাঞ্জ। এই জুটির দুই সন্তান আছে। তবে বিয়ে করলেও ঘর বাঁধতে পারছেন না তারা। ফলে অন্যরকম জীবন শুরু করতে যাচ্ছেন অ্যাসাঞ্জ-স্টেলা দম্পতি। খবর রয়টার্সের।

স্টেলা মরিসের বিয়ের পোশাকের ডিজাইন করেছেন শুরু থেকেই অ্যাসাঞ্জের সমর্থক জনপ্রিয় ব্রিটিশ ডিজাইনার ভিভিয়েন ওয়েস্টউড। বিয়েতে অ্যাসাঞ্জ পরেছেন সামরিক ধাঁচে তৈরি স্কার্টের মতো স্কটল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী বিয়ের পোশাক। এরও ডিজাইনার ভিভিয়েন ওয়েস্টউড।

স্টেলা মরিস ২০১১ সালে অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী দলে যোগ দেন। অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে সেবারই প্রথম দেখা হয় তার। এর পর তিনি প্রায় প্রতিদিন ইকুয়েডর দূতাবাসে গিয়ে অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে দেখা করতেন। এভাবে তাদের মধ্যে ভালো বোঝাপড়া তৈরি হয়। ২০১৫ সালে একে অপরের প্রেমে পড়েন। এর দুই বছর পর বাগদান সম্পন্ন হয়।

যুক্তরাজ্যের বিবাহ আইন ১৯৮৩-এর আওতায় বন্দিরা কারাগারে বিয়ের জন্য আবেদনের সুযোগ পান। আবেদন মঞ্জুর হলে সম্পূর্ণ খরচ নিজেদের মিটিয়ে বিয়ে করতে হয় তাদের। গত বছর নভেম্বরের শুরুতে বন্দি অ্যাসাঞ্জকে কারাগারে বাগদত্তা স্টেলা মরিসকে বিয়ে করার অনুমতি দেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হওয়ার পর স্টেলা বলেন, জুলিয়ান বিয়ের জন্য মুখিয়ে আছে। কারণ কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করার অনেক দিন পর অবশেষে আমাদের পরিণয় হচ্ছে। সে বিদেশি একটি শক্তির (যুক্তরাষ্ট্র) ইশারায় এখন বন্দি। এ ছাড়া তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগও গঠন করা হয়নি। এটা সম্পূর্ণরূপে একজনের জন্য অসম্মানজনক।