যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার রাস্তায় সম্প্রতি একটি গাড়ি চলছিল। রাতে চললেও জ্বলছিল না হেডলাইট। ট্রাফিক আইন ভাঙার অপরাধে গাড়িটি থামায় দায়িত্বরত পুলিশ। গাড়ির ভেতরে তাকিয়ে তো পুলিশ একেবারে থ। গাড়িতে চালকের আসনে কেউ নেই, এমনকি কোনো যাত্রীও নেই।

ক্রুজ নামের স্বয়ংক্রিয় এ গাড়ির নির্মাতা জেনারেল মোটর। চলতি বছরের শুরুর দিকে এ গাড়ি রাতে চলার অনুমতি দেওয়া হয়। ক্রুজ কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এটি গাড়ির নয়, 'মানুষের ভুল' ছিল। গাড়িটি পুলিশের সংকেত পেয়ে নিজে নিজেই থেমেছে। স্বয়ংক্রিয় গাড়িটির সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে কিংবা থামাতে কী করতে হবে- এ নিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেছে কোম্পানিটি।

কোম্পানিটি বলছে, তাদের স্বয়ংক্রিয় গাড়িতে রয়েছে ক্যামেরা ও মাইক্রোফোন, যা পুলিশের গাড়ির লাইট ও সাইরেন সহজেই শনাক্ত করতে পারে। প্রয়োজনে দায়িত্বরত পুলিশ গাড়িতে থাকা নম্বরের মাধ্যমে কোম্পানিটির সংশ্লিষ্ট কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্বয়ংক্রিয় গাড়ি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে এসেছে।

এদিকে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি নিয়ে টেসলাসহ বেশ কয়েকটি কোম্পানি কাজ করছে।