ইউক্রেনের প্রধান বন্দর শহর মারিওপোলে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের আত্মসমর্পণের প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া। বলছে, যারা অস্ত্র সমর্পণ করবে, তাদের জীবনের নিশ্চয়তা দেওয়া হবে।

মস্কো বলছে, ইউক্রেনীয় সৈন্যরা এবং তাদের ‘বিদেশী ভাড়াটেরা’ এখনও মারিওপোলে লড়াই করছেন। অথচ শহরটির প্রায় নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে রাশিয়া। 

রাশিয়ার বিবৃতিতে রোববারের মধ্যে মারিওপোলে থাকা ইউক্রেনীয় অবশিষ্ট সৈন্যদের অস্ত্র জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তাই ধারণা করা হচ্ছে, সোমবার থেকে মারিওপোলে আরও কড়াকড়ি আরোপ করতে যাচ্ছে মস্কো। খবর বিবিসির

এ প্রেক্ষাপট থেকেই ইউক্রেনের এই বড় বন্দর নগরীটির পতন আগামী কয়েক দিনের মধ্যে হতে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ছয় সপ্তাহ ধরে সেখানে রাশিয়ার হামলা চলছে এবং এতে মারা গেছে হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক।

তবে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি আগেই বলেছেন, মারিওপোলে ইউক্রেনের যোদ্ধাদের নিশ্চিহ্ন করার অর্থ আলোচনার অবসান ঘটানো।

মারিওপোলে যারা বেঁচে গেছে, তারাও কনকনে ঠাণ্ডায় ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। বোমা হামলায় শহরটি তছনছ হয়ে গেছে। ফলে বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও ওষুধের চরম সংকট তৈরি হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ শহরটির আরও উত্তরে সরে গেছে।

এছাড়া ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টও স্বীকার করেছেন, শহরটির অল্প অংশই তাদের নিয়ন্ত্রণে আছে।