প্রতিবারের মতো এবারও যুক্তরাষ্ট্রের হোয়াইট হাউসে সোমবার ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। আর এই ঈদ উদযাপনর অনুষ্ঠানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, বিশ্ব জুড়েই মুসলিমদের আক্রান্ত হতে হচ্ছে।

সেইসঙ্গে তিনি জানান, আমেরিকাকে প্রতিদিন মজবুত করে তুলছেন মুসলিমরাই। যদিও আমেরিকায় প্রতিনিয়ত সত্যিকারের সামাজিক চ্যালেঞ্জ ও হুমকির সঙ্গে লড়াই করতে হয় মুসলিমদের।

বাইডেন জানান, তিনি আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে প্রথম কোনো মুসলিমকে নিয়োগ দিয়েছেন। 

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কেননা আজকের বিশ্বে মুসলিমদের আমরা অনেক সময়ই নিগৃহীত হতে দেখছি। কখনোই কাউকে তার ধর্মীয় বিশ্বাসের জন্য নিগ্রহ করা উচিত নয়।

পাশাপাশি বাইডেনের কথায় উঠে এসেছে উইঘুর ও রোহিঙ্গা মুসলমানদের দুরবস্থার প্রসঙ্গও। তিনি বলেন, আজকের এই পবিত্র দিনে আমাদের তাদের কথাও ভাবতে হবে, যারা দুর্ভিক্ষ, সহিংসতা, সংঘর্ষ ও রোগের মুখোমুখি। তাদের মধ্যে রয়েছেন উইঘুর ও রোহিঙ্গা মুসলমানরাও।

সেইসঙ্গে আমেরিকার উচ্ছ্বসিত প্রশস্তিও শোনা গিয়েছে বাইডেনের কাছে। তার মতে, বিশ্বে আমেরিকাই একমাত্র দেশ, যা কোনো ধর্ম, জাতি, ভৌগোলিক অবস্থান নয়, স্রেফ একটা আইডিয়ার উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়েছে। আর মুসলমানরা যে সে দেশকে একটি নিখুঁত দেশে পরিণত করেছেন সেকথাও বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এদিনের অনুষ্ঠানে ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পাকিস্তানি গায়ক ও সুরকার আরুজ আফতাব এবং ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত ‘আমেরিকার জাতীয় মসজিদ’ হিসেবে পরিচিত মুহাম্মদ মসজিদের ইমাম ড. তালিব এম শরিফ।

অনুষ্ঠানের আগে টুইটারে একটি পোস্টে বাইডেন লেখেন, হোয়াইট হাউসে ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অনুষ্ঠান উদযাপন করতে পেরে তিনি ও তার স্ত্রী সম্মানিত বোধ করছেন। এদিকে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসও সকলকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

রোববার দিনের শেষে দেওয়া এক বিবৃতিতে বাইডেন পরিবার বলে, সকলের জন্য ধর্মীয় স্বাধীনতার ঐতিহ্য আমাদের দেশকে শক্তিশালী করে এবং এই মূলনীতির প্রতি আমাদের সম্মিলিত অঙ্গীকার রক্ষা করতে ও আরও দৃঢ় করতে আমরা সকল বিশ্বাসের আমেরিকানদের সঙ্গে কাজ করা অব্যাহত রাখব।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, হোয়াইট হাউসে ঈদ উদযাপন এবং সেসব অনুপ্রেরণামূলক মুসলিম আমেরিকান, যারা আমাদের দেশজুড়ে আরও মিল ও একতা তৈরির প্রচেষ্টার নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাদের সম্মানিত করার ঐতিহ্য এই বছর আমরা আবার চালু করব।

একই সঙ্গে বাইডেন পরিবার “বিশ্বজুড়ে লক্ষ লক্ষ স্থানচ্যুত মানুষ ও শরণার্থী, যারা এই পবিত্র ছুটির সময়টা তাদের পরিবার থেকে আলাদা হয়ে এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে অনিশ্চয়তার মধ্যে কাটাচ্ছেন”, তাদের বিষয়টিও বিশেষভাবে উল্লেখ করেন।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে গত বছরের হোয়াইট হাউসের ঈদ উদযাপন ভার্চুয়ালভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।