ঘূর্ণিঝড় আসানি গতিপথ পরিবর্তন করে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের কাকিন্দা উপকূলের কাছাকাছি এলাকায় আঘাত হানবে বলে জানিয়েছেন বিশাখাপত্তনম সাইক্লোন সেন্টারের পরিচালক সুনন্দা। 

তিনি জানান, কাকিন্দা উপকূলে আঘাত এনে আসানি পুনরায় কাকিন্দা এবং বিশাখাপত্তনমের মধ্যবর্তী সমুদ্রে চলে আসবে। বুধবার এই খবর জানিয়েছে ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

সুনন্দা বলেন, অন্ধ্র প্রদেশে সাইক্লোন সতর্কতা এবং রেড অ্যালার্ট দেওয়া হয়েছে। গতকাল পর্যন্ত আসানি গতিপথ ছিল উত্তর-পশ্চিম দিকে। কিন্তু শেষ ৬ ঘণ্টায় এটি পশ্চিম-উত্তরপশ্চিম দিকে সরে এসেছে। যা আমাদের অন্ধ্র প্রদেশের খুব কাছাকাছি। 

তিনি  জানান, শুরুতে ইন্ডিয়া মেটারোলোজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট (আইএমডি) কর্মকর্তারা ধারণা করেছিলেন, এটি মোড় ঘুরিয়ে বঙ্গোপসাগরের দিকে চলে যাবে। কিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে ঘূর্ণিঝড়টি কাকিন্দা উপকূলের দিকে যাচ্ছে এবং তা স্পর্শ করবে। 

সুনন্দা বলেন, আগামী কয়েক ঘণ্টায় এটি উত্তর-পশ্চিম দিকে সরবে এবং প্রায় অন্ধ্র প্রদেশ উপকূলের কাছাকাছি আসবে। আগামীকাল সকালে এটি তার গতিপথ পরিবর্তন করে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে গিয়ে কাকিন্দা উপকূল-পূর্ব গোদাভারি উপকূল ছুঁবে। তারপর বিশাখাপত্তনম উপকূলের সমান্তরালে উত্তর-পূর্ব দিকে এগিয়ে যাবে। 

এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ঘূণিঝড়ের প্রভাবের কারণে আইএমডি কাকিন্দা, গঙ্গাভারম এবং ভীমুনিপত্তনম বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করেছে। এ ছাড়া অন্ধ্র প্রদেশের বিশাখাপত্তনম, পূর্ব গোদাভারি, পশ্চিম গোদাভারি, কৃষ্ণা এবং গুন্টুরে জেলায় ধমকা হাওয়াসহ প্রবল বৃষ্টির আশঙ্কায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। 

আইএমডি নাগরিকদের সতর্ক করে বলেছে, ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ধমকা হাওয়াসহ প্রবল বর্ষণের ফলে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেতে পারে। প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে ঘরবাড়ি, কাঁচা-পাকা রাস্তার কিছু ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। এ ছাড়া ফসলেরও ক্ষতি হতে পারে।