অর্থনৈতিক সঙ্কটকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে চলমান বিক্ষোভ ও আন্দোলনে রীতিমতো টালমাটাল শ্রীলঙ্কা। বিক্ষোভকারীদের দমনে কারফিউ জারির পর সেনা মোতায়েন করেছে শ্রীলঙ্কা সরকার। এমনকি বিক্ষোভকারীদের দেখামাত্র দেওয়া হয়েছে গুলি চালানোর নির্দেশ। সরকারের এসব রক্তচক্ষু উপেক্ষা করেও আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন বিক্ষোভকারীরা।

শ্রীলঙ্কাজুড়ে সামরিক বাহিনীদের সদস্যদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে। এরই মধ্যে দেশটির রাজনৈতিক নেতাদের ৫০টির বেশি বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। এর মধ্যে সরকারকারদলীয় অনেক এমপি ও মন্ত্রীর বাড়িও রয়েছে। 

বুধবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া এবং তার ভাই ও সদ্য পদত্যাগ করা প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের পৈত্রিক বাড়িও জ্বালিয়ে দিয়েছে দেশটির বিক্ষুব্ধ জনতা। ধ্বংসযজ্ঞ চালানো হয়েছে রাজাপাকসে পরিবারের বিতর্কিত জাদুঘরেও। এমনকি মাহিন্দা রাজাপাকসের ছেলের একটি রিসোর্টেও অগ্নিসংযোগ করেছে বিক্ষোভকারীরা।

এদিকে গত সোমবারের সহিংসতাকে কেন্দ্র করে দেশটিতে এখন পর্যন্ত অন্তত ৯ জন নিহত হয়েছেন। এদের দেশটির মধ্যে ক্ষমতাসীন দলের এক এমপিও আছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ২০০ জন।

এর আগে গত সোমবার সরকারপন্থী সমর্থকরা বিক্ষোভকারীদের উপর তাণ্ডব শুরু করলে দেশজুড়ে সহিংস সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটে। এদিকে দেশের চলমান অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখে কয়েকদিন ধরেই শ্রীলঙ্কায় সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলে আসছে।