ভারতের কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার আন্দালিব ইলিয়াস বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত বেকার হোস্টেলের ইতিহাস-ঐতিহ্য সংরক্ষণ করা হবে।

ডেপুটি হাইকমিশনার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর ৮ নম্বর স্মিথ লেনের বেকার হোস্টেল পরিদর্শনে আসেন আন্দালিব। 

এ হোস্টেলের ২৪ নম্বর ঘরে ১৯৪৫ থেকে ১৯৪৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন।

বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত এ হোস্টেলটিকে আগামী দিনে ভালোভাবে সংরক্ষিত করার পাশাপাশি ২৪ নম্বর ঘরটির সৌন্দর্য বৃদ্ধির মাধ্যমে যাতে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে আরও গ্রহণযোগ্য করে তুলে ধরা যায় সে লক্ষ্যে হোস্টেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা বলার উদ্যোগের কথা জানান কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার।

আন্দালিব বলেন, এখানে প্রথমবার আসার অনুভূতিটা একেবারেই অন্যরকম। এ অনুভূতি এতটাই যে আমার পক্ষে কিছু বলা মুশকিল। এটি আমাদের জন্য ঐতিহাসিক এক জায়গা। আপনারা জানেন, বঙ্গবন্ধু এখানে পড়াশোনা করেছিলেন। এখানকার ২৪ নম্বর ঘরে তিনি ছিলেন দুই বছর। যেখান থেকে পরবর্তীতে তিনি একটি দেশকে স্বাধীনতার দিকে নিয়ে গিয়েছিলেন। এজন্য আমাদের মিশনের সবাই সুযোগ পেলে এখানে ছুটে আসি। 

তিনি আরও বলেন, আমি আসার পরপরই প্রথম সুযোগে এখানে চলে এসেছি। আমার সহকর্মীরা এখানে ছুটে এসেছে তারা কেউ সুযোগ হারাতে চাননি। এখনও হোস্টেল যথেষ্ট ভালো অবস্থায় রয়েছে। তবে সুযোগ রয়েছে আরও ভালোভাবে সংরক্ষণ করার। আমরা শুধুমাত্র সুন্দরে বিশ্বাসী নই আমরা সংরক্ষণেও বিশ্বাসী। এটি একটি ঐতিহাসিক, ঐতিহ্যবাহী জায়গা। ইতিহাসের সৌন্দর্য বৃদ্ধির সুযোগ নেই। আমরা কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করব। আমি বিশ্বাসী আমরা যৌথভাবে নিশ্চয়ই কিছু পদক্ষেপ নেব। এ ব্যাপারে আমি ঢাকার সঙ্গেও কথা বলব।