উত্তর আটলান্টিক নিরাপত্তা জোটের (ন্যাটো) সদস্য হতে আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন করেছে ফিনল্যান্ড ও সুইডেন।

বুধবার দেশ দুটি আবেদন করে। খবর আনাদোলুর।

আনুষ্ঠানিক আবেদন ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ বলেন, ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের ন্যাটোতে যোগদানের অনুরোধকে আমি আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাই।

একে জোটের ইতিহাসে ‘ঐতিহাসিক পদক্ষেপ’ হিসেবে অভিহিত করেছেন স্টোলটেনবার্গ।

তিনি বলেন, সুইডেন ও ফিনল্যান্ড ন্যাটোর ‘ঘনিষ্ঠ অংশীদার’ এবং তাদের সদস্যপদ ‘আমাদের নিরাপত্তা বাড়াবে’।

নিরাপত্তা জোটটির মহাসচিব বলেন, সদস্যপদের প্রক্রিয়ার বিষয়ে ন্যাটোর মিত্ররা ‘সব ইস্যু নিয়ে কাজ করে একটি দ্রুত সমাধানে পৌঁছাতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ’।

তিনি বলেন, বাল্টিক সাগর অঞ্চলে ন্যাটো সতর্কতা বাড়িয়েছে এবং জোটের সেনারা ‘প্রয়োজন অনুসারে খাপ খাইয়ে নেবে’।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সোমবার বলেছিলেন, সুইডেন ও ফিনল্যান্ডের সঙ্গে রাশিয়ার ‘কোনো সমস্যা নেই’ কিন্তু ‘এই ভূখণ্ডে সামরিক অবকাঠামোর সম্প্রসারণ অবশ্যই আমাদের প্রতিক্রিয়াকে উসকে দেবে’।

এদিকে ন্যাটোর গুরুত্বপূর্ণ সদস্য তুরস্কও ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের জোটে যোগ দেওয়া নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে।

ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার জন্য একটি দেশকে অবশ্যই জোটের সব দেশের সমর্থন অর্জন করতে হবে। অর্থাৎ জোটের ৩০ দেশ যদি চায় তবেই ফিনল্যান্ড ও সুইডেন সদস্য পদ পাবে।

ইউক্রেনে রাশিয়া হামলা চালানোর পর থেকেই ফিনল্যান্ড ও সুইডেন নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়ে আসছিল। এর পর দেশ দুটি ন্যাটোতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল। ফিনল্যান্ডের সঙ্গে রাশিয়ার সরাসরি সীমান্ত থাকলেও সুইডেনের নেই।