চাঁপাইনবাবগঞ্জের পদ্মা নদীতে মাছ শিকারে গিয়ে বজ্রপাতে নৌকাডুবির ২৪ ঘণ্টা পর বাবার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ছেলের লাশ এখনও উদ্ধার হয়নি। শুক্রবার (২০ মে) বিকেলে পদ্মা নদীর ধুলাউড়ি ঘাট থেকে লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। মৃতরা হলেন উপজেলার দুর্লভপুর ইউনিয়নের মনোহরপুর গ্রামের মিন্টুর ছেলে বদিউর (৪২) ও তার ছেলে আওয়াল (২২)।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পদ্মা নদীর ধুলাউড়ি ঘাটে নৌকায় করে মাছ শিকার করছিলেন বাবা বদিউর ও ছেলে আওয়াল। এ সময় বজ্রপাত হলে নৌকা উল্টে বাবা ও ছেলে নিখোঁজ হয়। পরে শুক্রবার বিকেলে বাবার লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস।

এদিকে তীব্র স্রোতে পদ্মা নদীতে তলিয়ে গেছে ছেলের মরদেহ বলে জানায় ফায়ার সার্ভিস। তবে নিখোঁজ ছেলের মরদেহ উদ্ধার অভিযানে কাজ করছে ডুবুরিদল। খবর পেয়ে বিকেলেই জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নিহতের পরিবারের সদস্যদের নিকট নগদ ৪০ হাজার টাকা প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল হায়াত।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, দুর্লভপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজিব রাজু ও ইউপি সদস্য আকতারুল ইসলামসহ অন্যরা। বজ্রপাতে বাবা-ছেলের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুর্লভপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজিব রাজু।