চট্টগ্রাম টেস্টে সেঞ্চুরির দ্বারপ্রান্তে গিয়ে হতাশ করেছিলেন লিটন। ঢাকা টেস্টে ভুল করেননি তিনি। ক্যারিয়ারের তৃতীয় টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন। তার সঙ্গে জুটি গড়া মুশফিকও সেঞ্চুরির করেছেন। দু’জন ষষ্ঠ উইকেটে রেকর্ড রান তুলেছেন।

বাংলাদেশ ৭৭ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৪৯ রান তুলেছে। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে লিটন-মুশি ২২৫ রান যোগ করেছেন। ক্যারিয়ারের নবম সেঞ্চুরি করে মুশফিক খেলছেন ১০০ রানে। লিটন খেলছেন ক্যারিয়ার সেরা ১২৭ রান করে।

ঢাকা টেস্টে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ২৪ রানে ৫ উইকেট হারায়ে বাংলাদেশ। এরপর লিটন-মুশফিক জুটি গড়েন। ১৬ ইনিংসেই ৪টি শতরানের জুটি গড়েছেন এই দু’জন। বাংলাদেশের হয়ে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। হাবিবুল বাশার ও জাভেদ ওমর রেকর্ড ৫ বার শতরানের জুটি গড়েছেন ৩২ ইনিংসে।

টস জিতে অধিনায়ক মুমিনুল বলেছিলেন, 'ম্যাচের শুরুর দিকে উইকেট ব্যাটিং বান্ধব থাকবে। পরের দিকে কঠিন হয়ে উঠবে ব্যাটিং।' ব্যাটিংয়ে নেমে দায়িত্বহীন শট খেলতে গিয়ে তামিম (০) ও সাকিব (০) ফিরে যান। ওপেনার জয়ও রানের খাতা খুলতে পারেননি। 

রান পাননি নাজমুল শান্ত ( )। মুমিনুল হকও (৯)। পেসার কাসুন রাজিথা তিনটি এবং অসিথা ফার্নান্দো তুলে নেন দুই উইকেট।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল খান, মাহমুদুল হাসান জয়, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, লিটন কুমার দাস, তাইজুল ইসরাম, মোসাদ্দেক হোসেন, সৈয়দ খালেদ আহমেদ এবং এবাদত হোসেন।

শ্রীলঙ্কা একাদশ: দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), ওশাদা ফার্নান্দো, কুশল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, দীনেশ চান্দিমাল, নিরোশান ডিকওয়েলা, রমেশ মেন্ডিস, প্রবীণ জয়াভিক্রমা, অসিথা ফার্নান্দো এবং কাসুন রাজিথা।