ইউরোপীয় ইউনিয়নের স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, মাঙ্কিপক্স রোগ মানুষের মধ্যে সহজে ছড়ায় না।

সোমবার সংস্থাটি এ তথ্য জানায়। খবর আনাদোলুর।

ইউরোপীয়ান সেন্টার ফর ডিজিজ প্রিভেনশন অ্যান্ড কনট্রোলের ঝুঁকি মূল্যায়ন প্রতিবেদনে বলা হয়, মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমণ ঘটে সংক্রমিত ব্যক্তির ত্বকের ক্ষতর মতো সংক্রামক উপাদানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ, শ্বাসপ্রশ্বাসের ফোঁটা ও ফোমাইটসের মাধ্যমে।

এ প্রতিবেদনে চিহ্নিত করা হয়েছে, ইউরোপে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হওয়া অধিকাংশ ব্যক্তি সমকামী এবং ‘কিছু ক্ষেত্রে উপস্থাপিত ক্ষতগুলোর প্রকৃতি যৌন মিলনের সময় সংক্রমণ হওয়ার বিষয়কে নির্দেশ করে’।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, যাদের বহু যৌনসঙ্গী রয়েছে তারা আক্রান্ত হওয়ার উচ্চঝুঁকিতে রয়েছেন।

ঝুঁকি মূল্যায়ন প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মাঝারি ধরনের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

তবে মাঙ্কিপক্স মারত্মক রোগে পরিণত হতে পারে বলে সতর্ক করেছে সংস্থাটি।

ইউরোপীয়ান সেন্টার ফর ডিজিজ প্রিভেনশন অ্যান্ড কনট্রোল ইউরোপের সদস্য দেশগুলোকে মাঙ্কিপক্স রোগীদের আইসোলেটেড করে রাখতে এবং আক্রান্তদের ক্ষত সেরে না উঠা পর্যন্ত তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মেলামেশা না করার পরামর্শ দিয়েছে।

রোগীরা ঘরেই যথাযথ যত্নের মাধ্যমে সেরে উঠবেন বলে জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

মাঙ্কিপক্স একটি ভাইরাস যা প্রাণী থেকে মানুষের মধ্যে সংক্রমিত হয়। মে মাসের শুরুর দিক থেকে ইউরোপের নয়টি দেশে এ রোগে আক্রান্ত রোগী পাওয়া যায়। দেশগুলো হলো— অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন ও নেদারল্যান্ডস।