ভারতের অন্যতম জাতীয় সৌধ কুতুব মিনারকে মন্দিরে রূপান্তর বা কুতুব মিনারে মন্দির স্থাপন করা সম্ভব নয়। আদালতে এমনটাই জানালো আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (এএসআই)। 

মঙ্গলবার দিল্লি আদালতে দেওয়া হলফনামায় এএসআই জানিয়েছে, ১৯১৪ সাল থেকে কুতুব মিনারের সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এখন আর তার গঠন বদলানো অসম্ভব।

সম্প্রতি ভারতের হিন্দুত্ববাদীরা দাবি তুলেছেন কুতুব মিনার চত্বরে হিন্দু মন্দির পুনরুদ্ধারের। এই পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে হলফনামা দিল এএসআই। এএসআই জানিয়েছে, সেখানে পূজা দেওয়ার যে দাবি তোলা হচ্ছে, সেটাও করা যাবে না। কুতুব মিনারের দক্ষিণে যে মসজিদ রয়েছে, তার থেকে ১৫ মিটার দূরত্বে খনন কাজ শুরু হতে পারে। সেখান থেকে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়কে এএসআই রিপোর্ট দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

হলফনামায় এএসআই আরও জানিয়েছে, আমরা সংরক্ষিত জায়গাকে পরিবর্তন করতে পারি না। যে সময়ে কুতুব মিনারকে সংরক্ষণ করা হয়, সে সময় সেখানে কোনো পূজা পাঠ হতো না। তাই এখন পূজার অনুমতিও দেওয়া সম্ভব নয়।

সম্প্রতি এএসআইর সাবেক অধিকর্তা ধর্মবীর শর্মা দাবি করেন, কুতুব মিনার তৈরি হয়েছিল রাজা বিক্রমাদিত্যের আমলে। সূর্যের গতিপথ পর্যালোচনার জন্য তৈরি হয়েছিল এ মিনার।




বিষয় : কুতুব মিনার মন্দির স্থাপন আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া জাতীয় সৌধ

মন্তব্য করুন