দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, বুধবার সকালে উত্তর কোরিয়া তিনটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে। 

সিউল কর্তৃপক্ষ বলছে, এক ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে পিয়ংইয়ংয়ের সুনান থেকে ওই তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে উত্তর কোরিয়া। বুধবার এই খবর প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি অনলাইন।

এই ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার ঘটনা এমন সময় ঘটল, যার কয়েক ঘণ্টা আগে কেবল এই অঞ্চল সফরে ছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এমনকি মার্কিন প্রেসিডেন্ট এই সফরেও উত্তর কোরিয়াকে নিরস্ত্র করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছিলেন।

চলতি বছর শুরুর পর থেকে হঠাৎ হঠাৎই উত্তর কোরিয়া ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে আসছে।  এদিকে জাপান নিশ্চিত করেছে, বুধবার অন্তত দুটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে দেশটি এটাও স্বীকার করেছে, এর সংখ্যা বেশিও হতে পারে।

জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুও কিশি বলেছেন, প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রায় ৩০০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম এবং সর্বোচ্চ ৫৫০ কিলোমিটার উচ্চতায় পৌঁছেছিল। দ্বিতীয়টি ৭৫০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম এবং ৫০ কিলোমিটার উচ্চতায় পৌঁছেছিল। 

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার এই ঘটনাকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ উল্লেখ করে জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, এটি জাপান এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের শান্তি, স্থিতিশীলতা এবং নিরাপত্তাকে হুমকিতে ফেলবে। 

অন্যদিকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার পর দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল বৈঠক করেছে। পরে দেশটির প্রেসিডেন্ট অফিস থেকে এই ঘটনাকে ‘গুরুতর উসকানিমূল’ বলে আখ্যা দিয়েছে।