রাশিয়া কৃষ্ণ সাগরে সোভিয়েত আমলের ৪০০ থেকে ৫০০ মাইন ছড়িয়ে রেখেছে বলে অভিযোগ করেছে ইউক্রেন। এসব মাইন ঝড়ের সময় তাদের নোঙর থেকে সরে গিয়ে সাগরে ভাসছে বলে জানিয়েছে দেশটি। এসব কারণে ইউক্রেনের বন্দরগুলো থেকে পণ্য রপ্তানি অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে দাবি করেছে কিয়েভ।

শুক্রবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। তবে ইউক্রেনের এসব দাবি বিবিসি স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারেনি তারা।

ইউক্রেনের ওডেসা আঞ্চলিক সামরিক প্রশাসনের মুখপাত্র শেরহি ব্রাচুক বলেছেন, রাশিয়া বন্দরগুলো অবরুদ্ধ করে রেখে ‘বিশ্বে একটি খাদ্য সংকট তৈরি করেছে’। খাদ্য সংকটের জন্য ইউক্রেনকে দায়ী করতে রাশিয়া ‘তথ্য অজুহাত’ ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

এর আগে ২৪ ফেব্রুয়ারি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশের পর থেকে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান পরিচালনা করছে রাশিয়া।

রাশিয়ার আক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে ইউক্রেনের সমুদ্র বন্দরগুলো অবরোধ করে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ কারণে গুরুত্বপূর্ণ খাদ্যশস্য রপ্তানি বন্ধ হয়ে পড়েছে। ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশটিতে ২ কোটি টন খাদ্যশস্য আটকা পড়ে আছে।  

এদিকে ইউক্রেনের খাদ্যশস্য রপ্তানি যুদ্ধের আগের পর্যায়ে ফিরিয়ে নেওয়া না গেলে কিছু দেশ দীর্ঘমেয়াদি দুর্ভিক্ষের মুখে পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে জাতিসংঘ। তবে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করার বিনিময়ে কৃষ্ণ সাগর দিয়ে খাদ্যশস্য সরবরাহের জন্য একটি করিডোর খোলার পাল্টা প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া।