বগুড়ার শেরপুরে বাড়ির পাশে খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বেলা ১০ টা থেকে দুপুর ১ টার মধ্যে উপজেলার দুটি পৃথক স্থানে এসব ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া দুই শিশু হলো- উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের ভাটরা উত্তরপাড়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে আব্দুল্লাহ (২) এবং সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ররোয়া মধ্যপাড়া গ্রামের এনামুল হকের ছেলে মহররম আলী (৩)।

পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সকালের ভাটরা উত্তরপাড়া গ্রামের বসতবাড়ির পাশে খেলা করছিল শিশু আব্দুল্লাহ। একপর্যায়ে খেলার ছলে পরিবারের সবার অজান্তে পুকুরে পড়ে সে নিখোঁজ হয় । পরে তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করা হয়। কিন্তু তার সন্ধান না পাওয়া যায়নি।পরে পুকুরের মধ্যে শিশুটির জুতা দেখে সবার সন্দেহ হয়। এরপর স্থানীয় লোকজন পুকুরে নেমে খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। একপর্যায়ে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য
কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

অপরদিকে সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ররোয়া গ্রামে বাড়ির সামনে খেলা করার সময় পাশের পুকুরে পড়ে নিখোঁজ হয় মহররম আলী। একপর্যায়ে বেলা একটার দিকে পুকুরের পানিতে শিশুটির লাশ ভাসতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে দ্রুত সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক বলেন, বেশ কিছু সময় আগেই শিশুটি মারা গেছে।

শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,পানিতে দুই শিশু মারা যাওয়ার ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যু মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।