নতুন অস্ত্রের পরীক্ষার অংশ হিসেবে রাশিয়া একটি হাইপারসনিক  ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। দেশটির সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, ‘জিরকন’ নামের এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা সফল হয়েছে। 

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ব্যারেন্টস সাগরে অবস্থান করা অ্যাডমিরাল গ্রোশকভ নামের একটি যুদ্ধ জাহাজ থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া হয়। পরে শ্বেত সাগরস্থ ১০০০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে ক্ষেপণাস্ত্রটি সফলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে। শনিবার এই খবর দিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা। 

এর আগে ২০২০ সালের অক্টোবরে জিরকন ক্ষেপণাস্ত্র প্রথমবার পরীক্ষামূলক ছুড়েছিল রাশিয়া। তখন পুতিন সেই পরীক্ষাকে রাশিয়ার জন্য ‘গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা’ বলে মন্তব্য করেছিলেন।  পরবর্তীতে চালানো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষাগুলোও একই যুদ্ধ জাহাজ এবং অন্য সাবমেরিন থেকে ছোড়া হয়। 

এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা এমন সময় চালাল রাশিয়া যখন দেশটি গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে চালানো সামরিক অভিযানের যৌক্তিকতা প্রমাণের চেষ্টা চালাচ্ছে। জিরকন ক্ষেপণাস্ত্রটির বৈশিষ্ট্য হলো এটি শব্দের গতির চেয়ে ৫-১০ গুণ বেশি গতিতে ছুটে এবং এক হাজার কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম।