ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম জাভার আলো ঝলমলে এক রাত। চারদিকে মেলার বিভিন্ন রাইড ছড়ানো-ছিটানো। তবে উপস্থিত সবার মনোযোগ কেবল 'শয়তানের কূপ'কে ঘিরে। লম্বা খাঁড়া দেয়ালের ওপর থেকে নিচের দিকে তাকিয়ে লোকগুলো কেমন যেন দম ফেলতে ভুলে গেছেন। কূপের ভেতরে 'মৃত্যুদেয়ালের' ওপর বিপজ্জনক গতিতে ছুটতে থাকা কারমিলা পূর্বার অবস্থা চিন্তা করে তাঁদের কপালে তখন ফুটে উঠেছে চিকন ঘাম। রাইড যখন শেষ হলো তখন আটকে রাখা দম ছেড়ে দিয়ে হাঁপ ছেড়ে বাঁচলেন দর্শকরা, আর কূপের নিচে ঠোঁটে স্মিত হাসি নিয়ে কারমিলা তখন সবাইকে উদ্দেশ করে হাত নাড়ছেন।
ছোটবেলা থেকেই এই বিপজ্জনক খেলায় মেতে আছেন কারমিলা। কোনোরকম সাবধানতা অবলম্বন ছাড়া মাধ্যাকর্ষণ শক্তিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মৃত্যুদেয়ালের ওপর আনুভূমিকভাবে ছুটতে তাঁর বেশ লাগে। ইন্দোনেশিয়ার মতো একটি মুসলিমপ্রধান দেশে ২৩ বছর বয়সী একজন তরুণীর জন্য বিভিন্ন উৎসবে এরকম খেলা দেখানো খুবই স্পর্শকাতর। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিজাব পরে মৃত্যুদেয়ালের ওপর ঘুরে বেড়ান তিনি। কারমিলা বলেন, কাজটা বিপজ্জনক হলেও নারীরা যখন অবাক হয়ে আমার ছুটে বেড়ানো দেখে, হাত বাড়িয়ে আমাকে ছুঁতে চায়, আমাকে 'মৃত্যুদেয়ালের রাজকন্যা' বলে ডাকে, তখন আমি স্বর্গীয় আনন্দ অনুভব করি। এএফপি।