কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আকিজ বিড়ি কারখানা বন্ধ ঘোষণার প্রতিবাদে শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সড়ক থেকে সরাতে পুলিশ মোতায়েন করা হলেও শ্রমিকদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। এতে এক পুলিশ সদস্যসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন।

আন্দোলনকারী আরিফ, নান্নু, টিপুসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক সমকালকে জানান, বুধবার দুপুরে উপজেলার হোসেনাবাদ বাজারে এ ঘটনা ঘটে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া,পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। 

ভেড়ামারা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইয়াছির আরাফাত জানান, পুলিশ এক রাউন্ড ফাঁকা রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে সড়ক অবরোধকারী বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে এক পুলিশসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ রুবেল (৩২), সামসুল (৩৪) ও ওয়াসিম (৩৫) নামে ৩ জন শ্রমিককে আটক করেছে। 

শ্রমিকরা বলেন, প্রতিটি বিড়ির প্যাকেটের গায়ে সরকার নির্ধারিত যে ব্যান্ডরোল লাগানোর কথা তা না লাগিয়ে দুটি ব্যান্ডরোল কেটে তিনটি বানিয়ে বিড়ির প্যাকেটে লাগানো হয়। আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরিতে দীর্ঘদিন ধরে সরকারের ট্যাক্স ফাঁকি দিতে খুব কৌঁশলে ফ্যাক্টরি ম্যানেজার পলাশের নেতৃত্বে এ কাজ চলে আসছে। 

মঙ্গলবার কুষ্টিয়া কাষ্টমসের একটি টিম ফ্যাক্টরিতে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার সত্যতা পায়। পরে তারা ৯০ লাখ টাকার ব্যান্ডরোল জব্দ করেন। 

এ ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ফ্যাক্টরি ম্যানেজার বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ফ্যাক্টরি বন্ধ ঘোষণা করেন। 

শ্রমিকরা বুধবার সকালে হোসেনাবাদ আকিজ বিড়ি কারাখানায় যোগ দিতে গেলে বিড়ি কারখানার ম্যানেজার পলাশের সঙ্গে তাদের বাকবিতণ্ডা হয়। 

পরে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা ফ্যাক্টরি খোলার দাবিতে কুষ্টিয়া-প্রাগপুর সড়কের হোসেনাবাদ বাজারে কাঠের গুড়ি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বেলে সড়ক অবরোধ করেলে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

সংঘর্ষের বিষয়ে জানতে আকিজ বিড়ি কারখানার ম্যানেজার পলাশ ও সহকারী ম্যানেজার আমিরুল ইসলামকে ফোন করা হলে তারা সাড়া দেননি।