ভারতের কলকাতার পার্ক সার্কাসে বাংলাদেশ উপদূতাবাসের সামনে আজ শুক্রবার দুপুরে এলোপাতাড়ি গুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে দুইজন নিহত হয়েছেন।

উপদূতাবাসের কাউন্সিলর (কনস্যুলার) বশির উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, উপদূতাবাসের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কলকাতা পুলিশের এক সদস্য এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে শুরু করেন। এতে স্কুটি আরোহী এক নারী গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। তার নাম রিমা সিং। তিনি হাওড়ার দাশনগরের বাসিন্দা।  

এ সময় গুরুতর আহত হন অ্যাপভিত্তিক ওই ভাড়া স্কুটির চালক। তিনি স্কুটি হাকিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে বাঁচেন। পরে নিজের বন্দুক দিয়ে আত্মঘাতী হন ওই পুলিশ সদস্য। 

পুলিশ জানিয়েছে, গুলির ঘটনায় আহত আরেক নারীর অবস্থা অত্যন্ত গুরুতর। এছাড়া আরও দুজন আহত হয়েছেন। তাদের চিকিৎসা হচ্ছে। তবে তাদের অবস্থা অনেকটা ভালো। 

ঘটনাস্থলে পুলিশ। 

কলকাতা পুলিশের পুলিশ সুপার ভিনীত কুমার গোয়েল জানিয়েছেন, আত্মঘাতী পুলিশ সদস্যের নাম চোদুপ লেপচা। তিনি কলকাতা পুলিশের পঞ্চম ব্যাটালিয়নের সদস্য। মাত্র চারদিন আগে তিনি বাংলাদেশ উপদূতাবাসের পুলিশ আউটপোস্টের ডিউটিতে যোগ দেন। তিনি কিছুদিন ধরে পারিবারিক সমস্যায় জর্জরিত ছিলেন বলে সহকর্মীরা জানিয়েছেন। 

গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যাওয়া রিমা সিংয়ের পুরোনো ছবি/ সংগৃহীত 

ঘটনার পরপরই পুলিশের বড় একটি টিম ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। তবে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্য কেন গুলি ছুড়েছেন সে সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানাতে পারেনি কলকাতা পুলিশ। স্থানীয়রা বলছেন, প্রায় ১২ থেকে ১৫ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়।

এদিকে, নিরাপত্তার ঘেরাটোপে থাকা এলাকায় কী করে এমন ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছে বাংলাদেশ উপদূতাবাস।

কাউন্সিলর বশির উদ্দিন জানান, কলকাতা পুলিশ পরে ব্রিফ করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবে।