বঙ্গবন্ধু সেতু রেল সংযোগ সড়কের মির্জাপুর রেলস্টেশনে তেলবাহী ট্রেনের ইঞ্জিনসহ ২টি লরি লাইনচ্যুত হয়ে পার্শ্ববর্তী ঢালুতে উল্টে পড়ে গেছে। এছাড়া সামনের একটি লরি লাইনচ্যুত হয়েছে। এতে তেলবাহী ট্রেনের চালক আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে তার নাম ঠিকানা কেউ জানাতে পারেননি।

সোমবার বিকেলে সোয়া ৫টার দিকে মির্জাপুর রেলস্টেশনের পশ্চিমপাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মির্জাপুর রেল স্টেশনের স্টেশনমাস্টার কামরুল হাসান জানান, তেলবাহী ট্রেনটি ঢাকা থেকে রংপুর ডিপোতে যাচ্ছিল। ট্রেনের ১৫টি লরি ছিল। এরমধ্যে ইঞ্জিনসহ অকটেন ভর্তি ট্রেনের সামনের দুটি লড়ি লাইনচ্যুত হয়ে ঢালুতে পড়ে উল্টে যায়।

তিনি আরও জানান, পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতযান একপ্রেস ও ঢাকা থেকে আসা তেলবাহী ৯৮১ নং ট্রেনটি মির্জাপুর রেল স্টেশনে ক্রসিং হওয়ার কথা ছিল। তেলবাহী ট্রেনটি মির্জাপুর রেল স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্মের লাইনে রেখে দ্রুতযান ট্রেনটি মেইন লাইন দিয়ে পাস করার কথা ছিল। সে অনুযায়ী তেলবাহী ট্রেনটিকে লোপ লাইনে প্রবেশ করার জন্য সিগনাল দেওয়া হয় এবং ট্রেনটি যেন স্টেশনে দাঁড়ায় সে ব্যবস্থা করা হয়।

কিন্ত তেলবাহী ট্রেনটির ব্রেকিং সিস্টেমে কাজ না করায় এবং ব্রেক কন্ট্রোল করতে না পারায় ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয় বলে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেনচালক স্টেশন মাস্টারকে জানান বলে তিনি জানিয়েছেন। এতে ট্রেনের ইঞ্জিন ও ইঞ্জিনের সাথে একটি লরি ট্রেন লাইনের বাইরে উল্টে পড়ে যায়। এছাড়া অপর একটি লরির সামনের অংশ লাইনচ্যুত হয় বলে তিনি জানান।

স্টেশন মাস্টার আরও জানান, এ কারণে পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতযান একপ্রেস ট্রেনটিকে মহেড়া স্টেশনে প্রায় ঘণ্টাখানেক সময় বিলম্বিত করানো হয়। দুর্ঘটনার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। উদ্ধার কাজ দ্রুতই শুরু হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মির্জাপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন জানান, দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে।এছাড়া মির্জাপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়েছেন।