সব ধরনের ইচ্ছাকৃত ধর্মীয় উসকানি নিষিদ্ধ করতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ৫৭টি মুসলিমপ্রধান রাষ্ট্রের সমন্বয়ে গঠিত সংগঠন ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)।

সম্প্রতি ভারতে মহানবী (সা.)-কে নিয়ে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দুই নেতার আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে সোমবার বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে ইচ্ছাকৃত উসকানি, ঘৃণা ও সহিংসতার প্ররোচনাকে নিষিদ্ধের আহ্বান জানায় সংস্থাটি। একই সঙ্গে ইসলাম, খ্রিস্টান, ইহুদিসহ অন্য যে কোনো ধর্মকে একইভাবে অবমাননা কিংবা ধর্মীয় মহান ব্যক্তিদের নিয়ে কটূক্তিরও নিন্দা জানায় ওআইসি।

ঘৃণা ছড়ায় এমন বক্তব্য প্রতিরোধে জাতিসংঘের একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে উপস্থাপিত বিবৃতিতে ভারতের ঘটনার উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। ওআইসির পক্ষে বিবৃতি পাঠ করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত মুনির আকরাম। তিনি বলেন, ইচ্ছাকৃত উসকানি, ইসলামি মহান ব্যক্তিত্ব এবং ধর্মীয় নিদর্শনের অবমাননার বিষয়ে ওআইসি উদ্বিগ্ন।

রাষ্ট্রদূত সতর্ক করেন, এসব বিষয় নিয়ন্ত্রণ করা না হলে বিশ্বশান্তি বাধাগ্রস্ত হবে। এমনকি সহিংসতা, ধর্মীয় উত্তেজনা, মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং নৃশংস অপরাধ বাড়িয়ে তুলতে পারে।

সম্প্রতি পাস করা সাধারণ পরিষদের রেজ্যুলেশনের ভিত্তিতে ঘৃণামূলক বক্তব্য প্রতিরোধের প্রথম আন্তর্জাতিক দিবস উপলক্ষে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সঙ্গে গত ১৮ জুন যোগ দেয় ওআইসি।

মরক্কোর উত্থাপিত রেজ্যুলেশনটিকে এ ধরনের ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক বক্তব্য ও ইসলামোফোবিয়া প্রতিরোধের মাইলফলক হিসেবে দেখছে ওআইসি।