আগামী ২২ জুলাইয়ের আগে জ্বালানির নতুন কোনো চালান শ্রীলঙ্কায় আসবে না বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের চিফ অব স্টাফ সাগালা রতনায়েকে। এ সময়ের মধ্যে জরুরি সেবা বাদে সাধারণ কোনো যানবাহন পেট্রোল কিংবা ডিজেল পাবে না বলেও জানান তিনি। শ্রীলঙ্কার সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, গতকাল বুধবার সাগালা বলেন, মূল্য পরিশোধের মতো তহবিল থাকলেও সরকারি সংস্থা সিলন পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (সিপিসি) আগামী ২২ জুলাই পর্যন্ত পেট্রোলের চালান আনতে পারবে না।

তিনি জানান, শ্রীলঙ্কায় এখন ১১ হাজার টন ডিজেল, ৫ হাজার টন পেট্রোল, ৩০ হাজার টন ফার্নেস অয়েল এবং ৮শ টন জেট ফুয়েল রয়েছে। ১১ থেকে ১৫ জুলাইয়ের মধ্যে ৩৮ হাজার টন ডিজেল পাওয়া যাবে। একই সঙ্গে গ্যাস সরবরাহে কোনো সমস্যা হবে না বলেও জানান তিনি।

এমন পরিস্থিতিতে জরুরি সেবা ছাড়া সাধারণ কোনো যানবাহনে পেট্রোল, ডিজেল বিক্রি বন্ধ থাকায় আরও শোচনীয় হয়ে উঠেছে দেশটির নাগরিকদের পরিস্থিতি। যারা মোটরযান চালিয়ে সংসার চালাতেন তাদের জীবন বেশি দুর্বিষহ। অনেকের ঘরে ফুরিয়ে গেছে খাবারও।

এদিকে, শ্রীলঙ্কার পোলোন্নারোয়া জেলার কান্দাকডাডু চিকিৎসা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে দাঙ্গায় কয়েকশ বন্দি পালিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। তাদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে কী কারণে দাঙ্গা শুরু হয় তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বলছে, চরম অর্থনৈতিক সংকটের কারণে মাদকাসক্তদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহূত জরুরি বিভিন্ন ওষুধের মজুত ফুরিয়ে গেছে। নিউজ ফাস্ট।