যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে থাকা দুই প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক অর্থমন্ত্রী ঋষি সুনাক ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ ট্রাস সোমবার প্রথমবারের মতো একটি টেলিভিশন বিতর্কে মুখোমুখি অংশ নেন। এ সময় তারা চীন নিয়ে তাদের অবস্থান ব্যক্ত করেন।

টিভি বিতর্কে সুনাক বলেন, ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যরা যদি তাকে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ দেন তবে তিনি চীনের ওপর কঠোর হবেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই ব্রিটিশের ভাষায়, অভ্যন্তরীণ ও বৈশ্বিক নিরাপত্তার জন্য চীন 'এক নম্বর হুমকি'। এ পরিস্থিতিতে চীনের ওপর কঠোর পদক্ষেপের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। এর আগে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে থাকা তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী লিজ ট্রাস অভিযোগ করে বলেন, চীন ও রাশিয়ার প্রতি সুনাক দুর্বল। খবর এএফপির

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস এর আগে বলেছিল, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রিত্বের এই প্রতিযোগিতায় সুনাকই একমাত্র প্রার্থী, যার যুক্তরাজ্য-চীন সম্পর্কোন্নয়নে স্পষ্ট এবং বাস্তবসম্মত দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। এ নিয়ে লিজ ট্রাসের বরাত দিয়ে ডেইলি মেইল বলেছে, এ ধরনের সমর্থন কেউ চাইবে না।

সংস্কৃতি ও ভাষা কর্মসূচির মাধ্যমে চীনের 'সফট-পাওয়ার' বিস্তারের প্রভাব ঠেকাতে ব্রিটেনে ৩০টি কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের সব ক'টিই বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব দেন সুনাক।