চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে উত্তর কোরিয়া আরও বেশি করে পারমাণবিক পরীক্ষা চালানোর প্রস্তুতি নিয়েছে। পারমাণবিক কেন্দ্রগুলোকে প্রস্তুত রেখেছে তারা। জাতিসংঘের গোপন এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর রয়টার্সের।

উত্তর কোরিয়ার নিষেধাজ্ঞা-সংক্রান্ত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কমিটিতে সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন নিষেধাজ্ঞাবিষয়ক পর্যবেক্ষকরা। বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের প্রতিবেদনটির সারসংক্ষেপ জানা গেছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, পুংগিরি পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্রে কাজ করার মধ্য দিয়ে অতিরিক্ত পারমাণবিক পরীক্ষা চালানোর পথ তৈরি হয়েছে। পারমাণবিক অস্ত্রের উন্নয়নে এসব পরীক্ষা চালানো হয়।
পারমাণবিক পরীক্ষা চালানো এবং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া নিয়ে উত্তর কোরিয়ার ওপর জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে জাতিসংঘের পর্যবেক্ষকরা বলছেন, উত্তর কোরিয়া তাদের পারমাণবিক পরীক্ষা কেন্দ্রগুলোকে প্রস্তুত রেখেছে, যদিও তারা কোনো পারমাণবিক যন্ত্রের পরীক্ষা চালায়নি। ২০২২ সালের প্রথম ছয় মাস দেশটি ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি ক্রমাগত বাড়িয়েছে। উত্তর কোরিয়া ব্যালিস্টিক ও গাইডেন্স টেকনোলজির সমন্বয়ে ৩১টি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। এর মধ্যে ছয়টি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) পরীক্ষা এবং দুটি স্বল্প পাল্লার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ছিল। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের উত্তর কোরীয় মিশন এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিক মন্তব্য করেনি।