জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি, পরিবহন ভাড়া ও নিত্য পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিসহ অসহনীয় লোডশেডিং এবং ভোলায় পুলিশের গুলিতে ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহমান নিহতের প্রতিবাদে বরিশালে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিএনপি। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে নগরীর অশ্বিনী কুমার হল সংলগ্ন জেলা ও মহানগর বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে এই বিক্ষোভ সমাবেশ করে বরিশাল দক্ষিণ ও উত্তর জেলা বিএনপি।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘মধ্যরাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়ে অবৈধ সরকার প্রমাণ করেছে তারা জুলুমবাজ ও গণবিরোধী।’ জনগণের টাকা লুট করতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে অভিযোগ তুলে বক্তারা বলেন, ‘বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমলেও আমাদের দেশে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি করা হয়েছে জনগণের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য।’

তারা বলেন, ‘জ্বালানি তেলের পাশাপাশি এখন গ্যাস ও বিদ্যুতের দামও বাড়ানোর প্রক্রিয়া চালাচ্ছে সরকার। এই সরকারের সময় ফুরিয়ে এসেছে। এটা বুঝতে পেরে তারা একের পর এক গণবিরোধী পদক্ষেপ নিচ্ছে।’ বক্তারা আরও বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর দেশের মানুষ এখন দিশেহারা। নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের মানুষের পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গেছে। দেশের মানুষের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। মানুষের অসন্তোষ ঠেকাতে সরকার পুলিশ বাহিনীকে ব্যবহার করছে। এই গণবিরোধী সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে গণআন্দোলন গড়ে তুলে সরকারের পতন ঘটাতে হবে।’

বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা দেওয়ান মো. শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আকতার হোসেন মেবুল, উত্তর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মজিবুর রহমান, মুলাদী উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুস সত্তার খান, হিজলা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুল গফ্ফার তালুকদার, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক তসলিম উদ্দিন প্রমুখ। সমাবেশ শুরুর আগে বরিশাল দক্ষিণ ও উত্তর জেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরা নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।